• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ছাত্রাবাস থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ পরীক্ষার্থী 

Sushanta
সুশান্ত চৌধুরী

ছাত্রাবাস থেকে নিখোঁজ হয়ে গেল এক ছাত্র। সুশান্ত চৌধুরী নামে বছর সতেরোর ওই ছাত্র সিবিএসই বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা দিচ্ছে এ বছর। বিহারের ভাগলপুর জেলার নওয়াগাছির বাসিন্দা সুশান্ত অভিনব বিদ্যাভারতী হাইস্কুলের ছাত্র। জোড়াসাঁকো থানা এলাকার রাতু সরকার লেনের একটি ছাত্রাবাসে থেকে সে পরীক্ষা দিচ্ছিল। গত ১১ মার্চ সন্ধ্যায় ছাত্রাবাস থেকে বেরিয়েছিল সুশান্ত। তার পর থেকেই আর খোঁজ মেলেনি তার।

পুলিশ জানিয়েছে, ছাত্রাবাসের তরফে জোড়াসাঁকো থানায় গত ১২ মার্চ একটি নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করা হয়। সেটির ভিত্তিতে অপহরণের মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে মঙ্গলবার পর্যন্ত খোঁজ মেলেনি ওই ছাত্রের। মুক্তিপণ চেয়েও কোনও ফোন আসেনি বলে পুলিশের দাবি। 

ওই ছাত্রাবাসের এক আধিকারিক মহাবীর দাস জানান, নিখোঁজ হওয়ার আগে সুশান্ত সিবিএসই বোর্ডের তিনটি পরীক্ষা দিয়েছিল। নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পরে ছিল অর্থনীতির পরীক্ষা। মঙ্গলবার মহাবীর বলেন, ‘‘প্রথম তিনটি পরীক্ষা হয়ে যাওয়ার পরে সুশান্ত বলেছিল পরীক্ষা ভালই হচ্ছে। এমনকি, নিখোঁজ হওয়ার আগের দিন, অর্থাৎ ১০ তারিখ আমাদের সঙ্গে হোলিও খেলে।’’ 

ছেলে নিখোঁজ হয়েছে জানতে পেরে গত সপ্তাহেই কলকাতায় আসেন সুশান্তর বাবা বিনোদকুমার চৌধুরী। তিনি কলকাতায় এসে ওই ছাত্রাবাসের আধিকারিক এবং অন্য আবাসিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন। এ দিন তিনি বলেন, ‘‘নিখোঁজ হওয়ার আগের দিন ছেলের সঙ্গে কথা হয়ে‌ছিল। পরীক্ষা ভাল হচ্ছে জানিয়েছিল। এমনকি, পরীক্ষার পরে ২৯ মার্চ বাড়ি আসার জন্য ট্রেনের টিকিটও কেটেছিল সুশান্ত। এর মধ্যে কী হল বুঝতে পারছি না।’’ স্বল্পবাক সুশান্ত খুব একটা বাইরে যেত না বলে জানিয়েছেন ছাত্রাবাস কর্তৃপক্ষ।

প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানিয়েছে, সুশান্ত ১১ তারিখ সন্ধ্যায় ছাত্রাবাস থেকে বেরোয়। এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখা গিয়েছে, ঘরে পরার পোশাকেই সে কলুটোলার দিকে হেঁটে যাচ্ছে। কলুটোলা পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তা তাকে হেঁটে যেতে দেখা গিয়েছে। তার পরে আর কোনও সিসি ক্যামেরায় সুশান্তকে দেখা যায়নি বলে দাবি পুলিশের। এক তদন্তকারী জানান, দু’টি মোবাইল ব্যবহার করত সুশান্ত। দু’টিই ছাত্রাবাসে রেখে গিয়েছে সে। এ ছাড়া, বাড়ি থেকে পাঠানো কিছু টাকা সঙ্গে নিয়েছে সে। কলুটোলার পরে সুশান্ত কোন দিকে গিয়েছে, তা জানার জন্য তদন্তকারীরা খোঁজ নিচ্ছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন