Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

পুস্তক পরিচয় ৫

ছড়ানো মণিমুক্তো

০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০০:০১

গোয়ালন্দের স্টিমারে ইলিশ মাছের মুড়ো দিয়ে পুঁইশাক খেয়ে স্বামী বিবেকানন্দ এমনই খুশি হন যে, ফেরার পথে পুঁই বাগানের মালিককে তিনি দীক্ষা দিয়েছিলেন। এমন নানান মণিমুক্তো ছড়ানো আছে আলপনা ঘোষের মছলিশ (আনন্দ, ১৫০.০০) নামের চমত্‌কার নিবন্ধ সংকলনে। বাঙালির জীবনে, ইতিহাসে, সাহিত্যে, রঙ্গরসিকতায়, ঝোলে ঝালে অম্বলে মাছ যে কী ভাবে মাখামাখি হয়ে আছে, চল্লিশটি সুস্বাদু লেখা সে কথা নির্ভুল জানিয়ে দেয়। অবশ্যই আছে রকমারি পদ রান্নার হদিশ। ওঙ্কারনাথ ভট্টাচার্যের অলংকরণ দারুণ, এবং দারুণ শমীক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেওয়া বইয়ের শিরোনামটি।

Advertisement



পরিমল ভট্টাচার্য যা লেখেন, আশ্চর্য ভাল লেখেন। তাঁর বইয়ের নাম শাংগ্রিলার খোঁজে (অবভাস, ২০০.০০)। বইয়ের উপ-শিরোনাম: হিমালয়ে গুপ্তচারণার তিনশতক। রহস্য? অবশ্যই, কিন্তু রহস্যমাত্র নয়।

১৮৬৮ সালে সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর, আইসিএস, কর্মসূত্রে পুণেয় যান। সেই থেকে মোটামুটি একশো বছরের সময়পর্বে মহারাষ্ট্রের এই প্রাচীন শহরের সঙ্গে বাঙালির যোগাযোগ নিয়ে তথ্যসমৃদ্ধ আলোচনা করেছেন সুশান্ত কুমার বসু: পুণে ও বাঙালি (অবভাস, ১০০.০০)।

বাবা রামদেব কিংবা রাবীন্দ্রিক বাঙালি তো বটেই, ‘সাধাওন মানুষ’, এমনকী ‘আর্টের গরিব’কেও চন্দ্রিল ভট্টাচার্য ছেড়ে কথা বলেন না। তাঁর দৃষ্টি-তরবারিকে নিছক ‘পলিটিকালি ইনকারেক্ট’ বলে সাব্যস্ত করলে অন্যায় হবে, কারণ তার কোপ থেকে তাঁর নিজেরও কোনও ছাড় নেই। ৪১টি তীক্ষ্ম তিরস্কারের সংকলন দু ছক্কা পাঁচ (দে’জ, ২৫০.০০)।

মানুষের স্বাচ্ছন্দ্যে নিসর্গের উপর বিজ্ঞান-প্রযুক্তির যে নির্মমতা, তাতে জলবায়ুর যে পরিবর্তন, তা স্বীকারে আজও দ্বিধা, ব্যাপক বিভ্রান্তি। অথচ বিশ্ব উষ্ণায়ন প্রশমনে প্রযুক্তিগত ব্যবস্থা ও সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি অত্যন্ত প্রয়োজন, সে উদ্যোগে অনাগ্রহ, অর্থের জোগানে ঘাটতি, ঐকমত্যের অভাব। তথ্যনথি-সহ এমন সব গুরুত্বপূর্ণ প্রসঙ্গ নিয়েই প্রদীপ দত্তের জলবায়ু বদলে যাচ্ছে/ পৃথিবী বিপন্ন (গাঙচিল, ৪৫০.০০)।

আরও পড়ুন

Advertisement