বেহাল যশোহর রোড (৩৫ নম্বর জাতীয় সড়ক) সংস্কারের দাবিতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন স্থানীয় বাসিন্দারা। শুক্রবার সকাল ১১টা থেকে গাইঘাটা বাজারে অবরোধ শুরু হয়। প্রায় এক ঘণ্টা অবরোধ চলে। যানজট হয়ে যায়। শেষে, জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের তরফে বনগাঁ মহকুমার সহকারী বাস্তুকার জয়ন্ত চক্রবর্তী ঘটনাস্থলে গিয়ে দ্রুত রাস্তা সারানোর প্রতিশ্রুতি দিলে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

জয়ন্তবাবু বলেন, “বনগাঁ মহকুমার মধ্যে চার কিলোমিটার রাস্তার খারাপ অবস্থা। আগামী বুধবার থেকে সংস্কারের কাজ শুরু হবে।” জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ সূত্রের খবর, এ জন্য প্রায় ৩৫ লক্ষ টাকা অনুমোদন হয়েছে। রাস্তার বাকি অংশের কাজেরও ওয়ার্ক অর্ডার হয়ে গিয়েছে।

মূলত এসইউসি-র নেতৃত্বে এ দিন অবরোধ হয়। এ দিন হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে এলাকার পুরুষ ও মহিলারা রাস্তায় বসে পড়েন। এর আগেও একই দাবিতে দু’বার ওই রাস্তায় অবরোধ হয়েছিল। তখন কোনওরকমে জোড়াতালি দিয়ে রাস্তা সারানো হয়। কিন্তু কিছু দিনের মধ্যেই ফের বেহাল হয়ে পড়ে রাস্তা। তারপরে প্রশাসন রাস্তা সারাইয়ের ব্যাপারে উদ্যোগী হয়নি বলে অভিযোগ। গাইঘাটা থেকে হাবরা পর্যন্ত রাস্তা অসংখ্য খানা খন্দে ভরা। জল জমলে সেগুলি ছোট ডোবার আকার ধারণ করে। গন্তব্যে পৌঁছতে সময় লাগে অনেক বেশি। এলাকাবাসীর অভিযোগ, বেহাল রাস্তার কারণে প্রায়শই দুর্ঘটনা ঘটছে। প্রায়ই গাড়ি উল্টে যাওয়ার ঘটনাও ঘটে থাকে বলে জানান এলাকাবাসীরা। ফলে বিপদের আশঙ্কা মাথায় নিয়েই ওই রাস্তায় চলাচল করতে হয়।

সংস্কারের দাবিতে অবরোধ।

এমনিতেই সড়কের দু’ধারে গাছের কারণে রাস্তা সরু হয়ে গিয়েছে। তার উপর খারাপ রাস্তায় পরিস্থিতি জটিল হয়েছে।

আন্দলোনকারীদের পক্ষে অশোক দাস বলেন, “অতীতে সড়ক মেরামতির নামে কোটি কোটি টাকা অপচয় করা হয়েছে। আমরা প্রশাসনের বিভিন্ন মহলে চিঠি দিয়ে দ্রুত রাস্তা সারাইয়ের আবেদন জানিয়েছিলাম। কিন্তু কাজ  হয়নি।”

 

ছবি: নির্মাল্য প্রামাণিক।