ভাইকে খুন করে জেলে গিয়েছিল। এ বার বন্ধুকে নিমন্ত্রণ করে বাড়িতে ডেকে এনে পিটিয়ে-কুপিয়ে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার হল আব্বাসউদ্দিন মণ্ডল ওরফে বাপি। ধৃতকে বুধবার বসিরহাটের এসিজেএম আদালতে তোলা হলে বিচারক ৭ দিন পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাদুড়িয়ার যদুরহাটি দক্ষিণ পঞ্চায়েতের দক্ষিণ শেরপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্বাস। ২০১৫ সালে জমি-সংক্রান্ত বিবাদের জেরে একমাত্র  ভাইকে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিল সে। বর্তমানে জামিনে ছিল। 

বাগুইহাটিতে কসাইয়ের কাজ করত সে। সেই সুবাদে পরিচয় হয় সেখানকার বাসিন্দা লোকনাথ সিংহ ওরফে বাপির। সোমবার রাতে বাপিকে বাড়িতে নিমন্ত্রণ করে আব্বাস। মঙ্গলবার সকালে বাড়ির উঠোনে ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় বাপিকে। 

পুলিশ জানতে পেরেছে, বাপি ও আব্বাস মদ্যপান করে প্রায় বেহুঁস হয়ে পড়ে। পুলিশের দাবি, জেরায় আব্বাস জানিয়েছে, মদ্যপ অবস্থায় তার মোবাইল হাতিয়ে নেয় বাপি। মাথা গরম হয়ে যায় আব্বাসের। বাঁশ দিয়ে পেটায় বাপিকে। জ্ঞান হারালে মাংস কাটার চপার দিয়ে কুপিয়ে খুন করে। খুন করে বাড়ির পাশে ঝোপের মধ্যে গিয়ে ঘুমিয়েও পড়ে সে। 

পুলিশ খুনে ব্যবহারিত বাঁশ এবং চপার উদ্ধার করেছে।