প্রতিবন্ধী এক যুবককে জুতোপেটা করার অভিযোগ উঠল স্থানীয় বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে। সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজনৈতিক পোস্ট করার কারণেই তাঁর উপরে হামলা হয়েছে বলে বাসন্তী থানায় লিখিত অভিযোগ জানান ওই তৃণমূল কর্মী।

শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বাসন্তীর পালবাড়ি এলাকায়। পুলিশ জানিয়েছে, অমৃত মণ্ডল নামে ওই যুবক সক্রিয় তৃণমূল কর্মী। রবিবার সন্ধ্যায় বাসন্তী থানায় তাঁর দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ছোট থেকেই অমৃতের দু’টি পা অকেজো। প্রায় আশি শতাংশ প্রতিবন্ধী তিনি। চলাফেরার জন্য ট্রাই সাইকেলই তাঁর ভরসা। শারীরিক সমস্যার জন্য দলের মিটিং-মিছিলেও সে ভাবে যেতে পারেন না। তবে দলের হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার-সহ জনসংযোগের কাজ করেন বছর পঁয়ত্রিশের এই যুবক। 

অভিযোগ, শনিবার রাতে পালবাড়ি এলাকায় একটি চায়ের দোকানে বসেছিলেন তিনি। সে সময়ে দুরন্ত নস্কর ও শেখর মণ্ডল নামে দুই বিজেপি কর্মী আচমকাই তাঁর উপরে চড়াও হয়। ফেসবুক পোস্ট নিয়ে গালিগালাজ করার পাশাপাশি ওই যুবকেরা তাঁকে জুতোপেটা করে বলেও অভিযোগ। অভিযুক্তেরা সকলেই মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন বলে জানিয়েছেন অমৃত। আশেপাশের লোকজন রক্ষা করেন অমৃতকে। তিনি জানান, এর আগেও সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজনৈতিক পোস্ট করার জন্য ফোনে হুমকি শুনতে হয়েছে তাঁকে। অমৃত বলেন, “দুরন্ত-শেখররা আমাকে আগেও হুমকি দিয়েছিল। মারধরের ঘটনার পর থেকে আমি ও আমার পরিবার আতঙ্কে আছি।’’ জয়নগরের সাংসদ প্রতিমা মণ্ডল বলেন, ‘‘যাঁরা এমন ঘটিয়েছেন, তাঁদের ধিক্কার জানাই।’’

অভিযুক্ত দুই বিজেপি কর্মীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি। ফোনেও উত্তর মেলেনি। তবে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে বাসন্তী ব্লক বিজেপির মণ্ডল সভাপতি সুবল বিশ্বাস বলেন, ‘‘এই ঘটনার সঙ্গে কোনও রাজনীতি সম্পর্ক নেই। স্থানীয় কোনও বিবাদ থেকে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে অনুমান। প্রতিবন্ধী যুবককে মারধরের ঘটনা পুলিশ তদন্ত করে দেখুক।’’