বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে গুরুতর জখম হলেন কয়েক জন। সোমবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে ঘুটিয়ারিশরিফ স্টেশনের ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্মে। রেল পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

রেল পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, বিজেপির ক্যানিংয়ের ৪ নম্বর মণ্ডল সভাপতি দিলীপ বিশ্বাসকে মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে এ দিন প্রতিবাদ মিছিল করে বিজেপি। অভিযোগ, মিছিল যখন ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্ম দিয়ে যাচ্ছিল, সে সময়ে তৃণমূলের বেশ কিছু কর্মী রড-লাঠি নিয়ে তাঁদের উপরে চড়াও হয়। জখম হন ৮ বিজেপি কর্মী-সমর্থক। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন তাঁদের ঘুটিয়ারিশরিফ ব্লক হাসপাতাল নিয়ে যায়। সুদর্শন গোস্বামী, বিশ্বনাথ মণ্ডলের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

বিজেপির অভিযোগ, শনিবার ঘুটিয়ারিশরিফ স্টেশনে বিজেপি নেতা দিলীপকে মারধর করা হয়েছিল। তাঁর অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাঁকেও ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দলের নেতা সুদর্শন গোস্বামী বলেন, ‘‘আমাদের মণ্ডল সভাপতিকে মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে একটি মিছিল করছিলাম। তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা চার দিক থেকে আমাদের ঘিরে ধরে মারধর করে। এই ঘটনায় আমি ও আমার দলের বেশ কয়েক জন কর্মী গুরুতর জখম হন।’’

ক্যানিং ১ ব্লক তৃণমূলের সভাপতি শৈবাল লাহিড়ি বলেন, ‘‘আমি এমন একটি ঘটনার কথা শুনেছি। আমাদের দলের কেউ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে মনে হয় না। তবে পুরো বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। আমরা এই ধরনের ঘটনাকে সমর্থন করি না। যদি আমাদের দলের কেউ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকে, তা হলে দলগত ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’