• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

তথ্য লুকোচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর, অভিযোগ

Sad
যন্ত্রণা: মৃত গোলাম মোস্তাফার স্ত্রী। ছবি: নির্মল বসু
প্লেটলেট কমছিল দ্রুত হারে। চিকিৎসক জানিয়ে দেন রোগীর অবস্থা সুবিধার নয়। বাদুড়িয়ার রুদ্রপুর গ্রামীণ হাসপাতাল থেকে স্থানান্তরিত করা হয় কলকাতার আরজিকর হাসপাতালে। কিন্তু গাড়িতে তোলার আগেই মারা গেলেন বাদুড়িয়ার মলেয়াপুর গ্রামের গোলাম মোস্তাফা বিশ্বাস (৪৪)। মঙ্গলবার রাতে বাদুড়িয়ার মাসিয়া গ্রামে বাড়ি খাদেকা বিবিও (৫০) জ্বরে ভুগে মারা গিয়েছেন। 
দু’টি ক্ষেত্রেই মৃত্যু ডেঙ্গিতে বলেই দাবি গ্রামবাসীদের। যদিও সে কথা মানতে নারাজ স্বাস্থ্য দফতর। কারণ যা-ই হোক, জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বসিরহাট মহকুমায় এই নিয়ে মারা গেলেন প্রায় ৩৫ জন। 
বুধবার মলেয়াপুরে যান স্থানীয় বিধায়ক আব্দুর রহিম দিলু। তিনি বলেন, ‘‘একের পর এক ডেঙ্গিতে মৃত্যু ঘটছে। কিন্তু স্বাস্থ্য দফতর নানা ভাবে তা এড়িয়ে যাচ্ছে। ফলে ডেঙ্গির সঠিক চিকিৎসা হচ্ছে না।’’ 
স্থানীয় সূত্রের খবর, সপ্তাহখানেক ধরে জ্বরে ভুগছিলেন রঘুনাথপুর পঞ্চায়েতের মলেয়াপুর গ্রামের বাসিন্দা গোলাম। পেশায় দর্জি গোলামের এক মেয়ে রিম্পি একাদশ শ্রেণিতে পড়ে। দুই ছেলে রনি-রকি, স্ত্রী বেবি ও বিধবা মা রূপবানকে নিয়ে সংসার। পরিবারের একমাত্র রোজগেরে গোলামকে শনিবার রুদ্রপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। মঙ্গলবার থেকে অবস্থার অবনতি হতে থাকে। কমতে থাকে প্লেটলেট। শেষমেশ কলকাতার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই মারা যান গোলাম। 
মলেয়াপুর গ্রামে এখন ঘরে ঘরে জ্বর। বাদুড়িয়ার নানা প্রান্তেই জ্বরের প্রকোপ বেড়েছে। হিঙ্গলগঞ্জের বিশপুর, বসিরহাটের পিঁফা, স্বরূপনগরের বড় বাঁকড়া-সহ হাসনাবাদ, সন্দেশখালি, হাড়োয়া এবং মিনাখাঁ ব্লকেও জ্বর ছড়িয়েছে। 
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় চিকিৎসকের কথায়, ‘‘ডেঙ্গি যদি না-ও হয়, জ্বর তো অন্য কারণেও হতে পারে। ঠিক কী জন্য রোগীর মৃত্যু হচ্ছে, তা যতই চাপার চেষ্টা করা হচ্ছে, ততই ঠিক মতো চিকিৎসা না পেয়ে মৃত্যুর আশঙ্কা বাড়ছে।’’
দেগঙ্গার বোড়ামারি পূর্বপাড়ায় ফতেমা বিবিও (৩৭) মারা গিয়েছেন জ্বরে ভুগে। তাঁর স্বামী ফইজুল্লা বলেন, ‘‘রক্ত পরীক্ষায় জানতেই পারলাম না, জ্বর কেন এল।’’
এই পরিস্থিতিতে, দেগঙ্গায় জ্বর নিয়ে সরকার তথ্য চাপা দিতে চাইছে, এই অভিযোগ তুলে বৃহস্পতিবার বিকেলে বেড়াচাঁপা চৌমাথায় ঘণ্টাখানেক টাকি অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় ফরওয়ার্ড ব্লক। পরে পুলিশ ও দেগঙ্গার বিডিও এসে সুচিকিৎসার আশ্বাস দিলে অবরোধ ওঠে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন