‘বদলা’ নিতে রাস্তার ইট তুলে ফেলল তৃণমূল
শুক্রবার সকালে এলাকার মানুষ দেখতে পান, কয়েকশো মিটার রাস্তার ইট বিক্ষিপ্ত ভাবে তুলে ফেলা হয়েছে। যার ফলে রাস্তায় তৈরি হয়েছে গর্ত। সাইকেল কিংবা ভ্যানরিকশা চলতে পারছে না।
Road

কদম্বগাছির এই রাস্তা থেকেই ইট তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার। নিজস্ব চিত্র

লোকসভা ভোটের ফল ঘোষণার পরেই কয়েক মাস আগে তৈরি হওয়া রাস্তার ইট রাতের অন্ধকারে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাতে ওই ঘটনা ঘটে দত্তপুকুর থানার কদম্বগাছি গ্রাম পঞ্চায়েতের হেমন্ত বসু নগর ১ মাঠপাড়া এলাকায়। অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।

শুক্রবার সকালে এলাকার মানুষ দেখতে পান, কয়েকশো মিটার রাস্তার ইট বিক্ষিপ্ত ভাবে তুলে ফেলা হয়েছে। যার ফলে রাস্তায় তৈরি হয়েছে গর্ত। সাইকেল কিংবা ভ্যানরিকশা চলতে পারছে না। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, অবিলম্বে রাস্তা মেরামতির ব্যবস্থা করুক পঞ্চায়েত।

এ দিন সঞ্জয় অধিকারী নামে এলাকার এক বাসিন্দা বলেন, ‘‘ওই এলাকাটি বারাসতের সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদারের লোকসভা কেন্দ্রের ৫৪ নম্বর বুথের কাছে। সেখানে এ বার বিজেপি-র ভোট বেড়েছে, তৃণমূলের ভোট কমেছে। তাই আমরা যাতে বেহাল রাস্তায় চলাচল করতে না পারি, সেই জন্যই ফল প্রকাশের পরে তৃণমূলের স্থানীয় নেতা-কর্মীরা রাতের অন্ধকারে রাস্তার ইট তুলে ফেলে দিয়েছেন।’’

অভিযোগ স্বীকার করে কদম্বগাছি পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ও তৃণমূলের নেতা সুনীল মণ্ডলের সাফ জবাব, ‘‘ওই এলাকায় পঞ্চায়েত ৩৮ লক্ষ টাকার উন্নয়ন করেছে। এত খরচ করে ওই এলাকায় উন্নয়নের বন্যা বইয়ে দিয়েছি। তার পরেও যাঁরা আমার বুথে বিজেপিকে ভোট দেন, তাঁদের কি আমি মিহিদানা, পোলাও খাওয়াব?’’ সুনীলবাবু আরও বলেন, ‘‘ওই রাস্তায় আর ইট পড়বে না।’’

ওই রাস্তা দিয়ে বারাসত-হাসনাবাদ শাখার কড়েয়া কদম্বগাছি রেল স্টেশন হয়ে স্থানীয় মানুষ যাতায়াত করেন। পাশাপাশি, ওই রাস্তা ধরে বাদু রোড হয়ে টাকি রোডের ধর্মতলা মোড়ে ওঠা যায়। এ দিন মাঠপাড়া এলাকার মানুষ জানান, ট্রেন ধরার জন্য অন্য এলাকার অনেকেও রাস্তাটি ব্যবহার করেন। তাঁদের বক্তব্য, রাস্তাটি এখনও পুরোপুরি তৈরি হয়নি। তার মধ্যেই ইট তুলে নেওয়া হল।

আরও খবর