ক্যানিংয়ের হাটপুকুরিয়া পঞ্চায়েতের প্রধান প্রতিমা সর্দারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও সরকারি প্রকল্পের রাস্তা, ঘর তৈরির কাজে কাটমানি খাওয়ার অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখালেন গ্রামবাসীরা। 

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা নাগাদ পঞ্চায়েতের অফিসের মূল গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। এ দিনই প্রায় ঘণ্টা দু’য়েক পঞ্চায়েতের সামনের রাস্তা অবরোধ করে রাখেন এলাকার মানুষ। পরে ক্যানিং থানার আইসি সতীনাথ চট্টরাজ বাহিনী নিয়ে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেন।

পঞ্চায়েত এলাকার চাষিদের জন্য কৃষি দফতর থেকে আসা ১২ কুইন্টাল ধানের বীজ, রাসায়নিক স্প্রে মেশিন এবং এলাকার মানুষের ঘরের ছাউনির জন্য ত্রিপল নিয়ে প্রধান দুর্নীতি করেছেন বলে অভিযোগ। সেগুলি ঠিক ভাবে গ্রামের মানুষের মধ্যে বণ্টন হয়নি। তা ছাড়া, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, গীতাঞ্জলী-সহ একাধিক প্রকল্পে আসা ঘরের টাকা থেকে কাটমানি ও এলাকায় রাস্তা তৈরির জন্য ঠিকাদারের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা কাটমানি খেয়েছেন বলে অভিযোগ। প্রধান-সহ পঞ্চায়েত অফিসে থাকা কর্মীদের এ দিন দীর্ঘক্ষণ আটকে রাখা হয়। প্রায় মাসখানেক বাদে এ দিন পঞ্চায়েতে আসেন প্রধান প্রতিমা সর্দার। তারপরেই এলাকার বাসিন্দারা পঞ্চায়েতের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। 

স্থানীয় বাসিন্দা গিয়াসউদ্দিন মোল্লা ও আমিরুল হালদার বলেন,  ‘‘প্রধান দুর্নীতিগ্রস্ত। গ্রামের মানুষের জন্য আসা সরকারি সুযোগ-সুবিধা কিছুই গ্রামের মানুষকে দিচ্ছেন না। সরকারি ধানের বীজ থেকে শুরু করে ত্রিপল কিছুই আমরা পাই না। এমনকী, আমাদের জন্য সরকারি ঘর এলে সেখান থেকে দশ-বিশ হাজার টাকা কাটমানি না দিলে ঘর দেওয়া হয় না।’’ 

অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধান। তিনি বলেন, “একমাস ধরে পঞ্চায়েতে কাজ চলছে। গোডাউন সারাই হচ্ছে। সে কারণে কৃষি দফতর থেকে আসা বারো কুইন্টাল ধান পঞ্চায়েতের পাশেই একটি ক্লাবঘরে রাখা হয়েছে। পাশাপাশি সরকারি সমস্ত সুযোগ সুবিধা পঞ্চায়েতের সব সদস্যকে নিয়ে বসেই বৈঠক করে বণ্টন করা হয়।’’ আজ চক্রান্ত করে কয়েকজন সদস্য এলাকা থেকে লোকজন নিয়ে এসে এই ঝামেলা করেছেন বলে প্রধানের দাবি। 

এ দিকে, পঞ্চায়েতে ঝামেলার খবর পেয়ে ক্যানিং থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশি প্রহরায় প্রতিমা সর্দারকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসা হয়। পাশাপাশি সমস্যা মেটানোর জন্য শুক্রবার বিডিও ক্যানিং ১ নীলাদ্রি খর দে হাটপুকুরিয়া পঞ্চায়তের সব সদস্যদের নিয়ে বৈঠক ডেকেছেন। বিডিও বলেন, “পঞ্চায়েতে একটা ঝামেলার কথা পুলিশের কাছ থেকে জানতে পারি। বিষয়টি মেটানোর জন্য শুক্রবার পঞ্চায়েতের সদস্যদের নিয়ে আলোচনায় বসা হবে।’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।