দিন কয়েক শান্তই ছিল উত্তর ২৪ পরগনার কাঁকিনাড়া। টানা গোলমালের ক্ষত পুরোপুরি না সারলেও ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছিল এলাকা। ‘আর কিছু হবে না’ ধরে নিয়ে মানুষ রাস্তাঘাটে বেরোতে শুরু করেছিলেন। দোকানপাটও খুলেছে ইতিমধ্যে। স্কুলে যাচ্ছে ছেলেমেয়েরা। এরই মধ্যে মঙ্গলবার বিকেলে ফের বোমাবাজিতে অশান্ত হল কাঁকিনাড়া। 

মঙ্গলবার কাঁকিনাড়া বাজারের ১২ নম্বর গলিতে বোমার ঘায়ে এক মহিলা-সহ তিন জন জখম হন। পুলিশ এক জনকে গ্রেফতার করেছে। আর কারা এই ঘটনায় জড়িত, কেন বোমাবাজি হল, সে সব খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, তখন বিকেল সাড়ে ৫টা। রাস্তাঘাটে লোকজনের ভিড় ছিল। স্কুল-কলেজের পড়ুয়ারা কেউ কেউ ঘরে ফিরছিলেন। এমন সময়ে আচমকা ১২ নম্বর গলিতে বোমাবাজি শুরু হয়। পর পর কয়েকটি বোমা পড়ে। রাস্তা ধোঁয়ায় ঢেকে যায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই দেখা যায় রাস্তায় পড়ে কাতড়াচ্ছেন তিন জন। কিছুক্ষণের মধ্যে পুলিশ আসে। জখমদের ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, জখমেরা হলেন কলাবতী দেবী, আকাশ বাসফোর এবং অসন্ত রজক। কলাবতী ও অসন্তের চোট গুরুতর হওয়ায় তাঁদের নদিয়ার কল্যাণী জেএনএম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

ব্যারাকপুর কমিশনারেটের ডিসি (‌জোন ১) অজয় ঠাকুর জানান, এই ঘটনার পরেই পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে সাম্প্রতিক গোলমালের কোনও সম্পর্ক রয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারী অফিসারেরা। 

এরই মধ্যে আশার আলো, বোমাবাজির পরেও এ দিন আর আগের মতো বন্ধ হয়নি দোকানপাট। রাত পর্যন্ত খোলা ছিল বাজার।