তিন বছর পর নিখোঁজ মাকে ফিরে পেলেন ছেলে। সৌজন্যে হ্যাম রেডিও এবং গোসাবার কচুখালি গ্রামের কয়েকজন যুবক। রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে গোসাবার ব্লক অফিসে।

কচুখালি থেকে খোঁজ পাওয়া অসুস্থ রামোদেবীকে গোসাবার বিডিও সৌরভ মিত্রের উদ্যোগে ব্লক অফিসে নিয়ে আসা হয়। সেখানেই তিন বছর পর দেখা হয় মা ও ছেলের। দু’জন দু’জনকে জড়িয়ে ধরে কাঁদতে শুরু করেন।

বছর পঁয়ষট্টির রামোদেবী বিহারের সহরসা জেলার বাসিন্দা। বছর তিনেক আগে তাঁর স্বামীর মৃত্যু হয়। তার পরে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। তিন বছর এদিক ওদিক ঘুরে কোনও ভাবে কচুখালিতে এসে পড়েন। সেখানেই স্থানীয় যুবক অপূর্ব ও শুভঙ্করের নজরে পড়েন তিনি। তাঁরাই হ্যাম রেডিয়োর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। রামোদেবীর দু’ছেলে সুরজ ও মোহিত কর্মসূত্রে দিল্লিতে থাকেন। হ্যাম রেডিওর মাধ্যমেই তাঁদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়। মায়ের খবর পেয়েই দিল্লি থেকে রওনা দেন সুরজ। রবিবার সকালে তিনি গোসাবা ব্লক অফিসে এসে পৌঁছন। সুরজ বলেন, “হারিয়ে যাওয়ার পর মাকে অনেক জায়গায় খুঁজেছি। কোথাও পাইনি। মাকে ফিরে পাওয়ার আশা একরকম ছেড়েই দিয়েছিলাম। হ্যাম রেডিওর ফোন পেয়ে তাই প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারিনি। পরে ওঁরা মায়ের ছবি দেখান।” মাকে নিয়ে রবিবারই দিল্লি রওনা দেন সুরজ।

মাকে ছেলের কাছে ফিরিয়ে দিতে পেরে খুশি কচুখালি গ্রামের বাসিন্দারা। অপূর্ব, শুভঙ্করেরা বলেন, “মাকে সন্তানের কাছে ফিরিয়ে দিতে পারলাম, এটা ভেবেই ভাল লাগছে।”

কী বলছেন, হ্যাম রেডিয়োর পশ্চিমবঙ্গ সার্কেলের সম্পাদক অম্বরীশ নাগ বিশ্বাস?

দীর্ঘদিন পরে মা-ছেলের দেখা হওয়ার বিষয়ে অম্বরীশ বলেন, ‘‘এটাই আমাদের কাজ। সুষ্ঠু ভাবে কাজটা করতে পেরে ভাল লাগছে।’’