• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কামড়ে কাটা গেল কান

Ear Bitten
প্রতীকী ছবি।
বাড়ি ফেরার পথে ট্রেনের মধ্যে ব্যাগ রাখা নিয়ে চলে দু’পক্ষের বচসা। তা থেকে হাতাহাতি। শেষমেশ কামড়ে এক যুবকের কান ছিঁড়ে চম্পট দেয় আরও একজন। 
মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে দেগঙ্গার ভাসলিয়া রেল ষ্টেশনে।  পুলিশ জানায়, ঘটনার পর অভিযুক্তরা ঘটনাস্থল ছেড়ে চম্পট দেয়। জখম যুবককে স্থানীয় বিশ্বনাথপুর ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক বারাসত জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে।
স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার দুপুরে কাজ সেরে কলকাতার বিরাটি থেকে ট্রেনে চড়েন দেগঙ্গার কেএম চাঁদপুরের বাসিন্দা হাসানুর সর্দার ও তাঁর ভাই ফিরোজ সর্দার। তাঁদের কাছে থাকা ব্যাগ রাখা নিয়ে বচসা বাধে দেগঙ্গার খড়ুয়া চাঁদপুরের ফারুক মণ্ডল ও কচ্চি মণ্ডলের। শুরু হয় হাতাহাতি। ইতিমধ্যে ফারুক ফোন করে ভাসলিয়া স্টেশনে ডেকে নেয় কিছু যুবককে। ট্রেন ভাসলিয়ায় থামতেই হাসানুরের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে ফারুকের দলবল। হাসানুরকে বাঁচাতে জখম হন তাঁর ভাই ফিরোজ। 
এমন সময় ট্রেনের মধ্যে হাসানুরের ব্যবহারের যোগ্য জবাব দিতে ফারুক দাঁত দিয়ে কান কামড়ে ছিঁড়ে নেয়। এই ঘটনা দেখে ভয়ে আঁতকে ওঠেন অন্য যাত্রীরা।
জাকির হোসেন নামে ভাসলিয়ার এক বাসিন্দা বলেন, ‘‘কাটা কানের টুকরো নিয়ে বারাসত জেলা হাসপাতালে যাচ্ছি। যদি চিকিৎসকের চেষ্টায় জোড়া লাগানো যায়।’’ এমন অমানবিক আচরণ ক্ষুদ্ধ ভাসলিয়ার মানুষ।
অভিযোগ জানাতে দেগঙ্গা থানায় হাসানুরকে নিয়ে গেলে পুলিশ তাদের আগে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। তবে রেল ষ্টেশনে মধ্যে এমন ঘটনা ঘটায় রেল পুলিশের কাছে  অভিযোগ দায়ের করতে বলেন দেগঙ্গা থানার পুলিশ।
 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন