দাদা মদ্যপানের বিরোধিতা করায় তাঁকে চপার দিয়ে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল জেঠতুতো ভাইয়ের বিরুদ্ধে। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ শহরতলির বজবজ থানার বুইতা গ্রামে। পুলিশ জানিয়েছে, নিহতের নাম পুলক কাঞ্জি (৬৮)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পুলকবাবুদের একান্নবর্তী পরিবার। ওই রাতে বাড়িতে মদ্যপান করছিলেন তাঁর জেঠতুতো ভাইয়েরা। বাড়িতে বসে মদ খাওয়ার প্রতিবাদ করেন পুলকবাবু। অভিযোগ, মদ্যপানের বিরোধিতা করতেই তাঁর উপরে মত্ত অবস্থায় চড়াও হন জেঠতুতো ভাইয়েরা। পুলকবাবুকে মাটিতে ফেলে এলোপাথাড়ি মারা হতে থাকে। তাঁকে বাঁচাতে ছুটে আসেন তাঁর নিজের ভাইয়েরা। কিন্তু এর মধ্যে আচমকাই পলাশ নামে এক জেঠতুতো ভাই চপার দিয়ে পুলকবাবুকে কোপাতে শুরু করে। গুরুতর জখম অবস্থায় ছটফট করতে থাকেন ওই বৃদ্ধ। থানায় খবর দেওয়া হয়। বজবজ থানার পুলিশ এসে জখম পুলকবাবুকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পুলকবাবু পেশায় ভ্যানচালক ছিলেন। তাঁদের পরিবারে নানা সমস্যা রয়েছে। তা নিয়ে প্রায়ই জেঠতুতো ভাইদের সঙ্গে বচসা হত। তদন্তকারীরা জানান, ওই ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছেন পুলকবাবুর অন্য তিন ভাইও। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে মূল অভিযুক্ত পলাশ পলাতক। মৃতদেহটি ময়না-তদন্তে পাঠানো হয়েছে।