রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় পড়ে থাকা এক বৃদ্ধকে উদ্ধার করে পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দিল পুলিশ। গোবরডাঙা থানার মছলন্দপুর এলাকার ঘটনা। পুলিশ জানিয়েছে, ৯৩ বছরের ওই বৃদ্ধের নাম অনিল নস্কর। বাড়ি নিউটাউন এলাকায়। তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার সন্ধ্যায়  মছলন্দপুর রেল স্টেশন লাগোয়া বাসস্ট্যান্ডের কাছে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়েছিলেন অনিল। মছলন্দপুর ফাঁড়ির পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে মছলন্দপুর ব্লক গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে অন্যত্র স্থানান্তরিত করার কথা বলেন। তবে হাসপাতালের চিকিৎসক তথা হাবড়া-১ ব্লকের বিএমওএইচ সজল বিশ্বাসের তৎপরতায় চিকিৎসা শুরু হয়।

প্রথমে অনিল তাঁর নাম-পরিচয় কিছুই বলতে পারেননি। তদন্তে নেমে  শুক্রবার তাঁর পরিচয় জানতে পারে  পুলিশ। এরপরই পুলিশের তরফে নিউটাউন থানায় ইমেল করে বিষয়টি জানানো হয়। এসআই চিন্তামণি নস্কর নিউটাউন থানার আইসি অতনু ঘোষালকে ফোন করেও বিষয়টি জানান। নিউটাউন থানা থেকে বৃদ্ধের পরিবারে খবর দেওয়া হয়। শনিবার বিকেলে বৃদ্ধের নাতি বাপ্পা নস্কর হাজির হয় হাসপাতালে। পুলিশ জানিয়েছে, অনিল নস্কর অবিবাহিত। ভাইয়ের পরিবারের সঙ্গে থাকতেন। মাঝেমধ্যেই অনিল মানসিক অবসাদগ্রস্ত হয়ে বেপাত্তা হয়ে যেতেন। পরে আবার বাড়ি ফিরে  আসতেন। তবে গত কয়েক মাস ধরেই তাঁর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

শনিবার পরিবারের লোকজনকে দেখে বৃদ্ধ বাড়ি যেতে চাইলেও  তাঁকে নিয়ে যেতে অস্বীকার করেন পরিবারের লোকেরা। অনিল  পুনরায় হারিয়ে যেতে পারেন, তাই সরকারি কোনও জায়গায় তাঁকে রাখার আবেদন করেন বাপ্পা। তবে ফিরিয়ে নিয়ে না গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলায়, বৃদ্ধকে বাড়ি নিয়ে যান তাঁর নাতি।