কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক মানতে চায়নি যুবকের পরিবার। অভিযোগ, রবিবার বাড়ি এসে ওই যুবক তুহিনা বল্লভ (১৭) নামে ওই কিশোরীকে অপমান করেন। এরপরেই মেয়েটিকে ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান বাড়ির লোকজন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে বুধবার মারা গিয়েছে সে। ময়নাতদন্তের পরে দেহ গ্রামে এলে ক্ষিপ্ত গ্রামবাসীরা যুবকের বাড়ি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেন। ভাঙচুর করা হয় তাঁর এক আত্মীয়ের বাড়িও।  

গাইঘাটার মধ্যবকচরা এলাকার এই ঘটনায় পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সামাল দেয়। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত তুহিনার পরিবারের তরফে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে বাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ বুধবার রাতেই তুহিনার মাসতুতো দাদা পিন্টু দেবনাথকে গ্রেফতার করেছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশি টহল চলছে।         

পুলিশ জানিয়েছে, তুহিনা পড়ত দশম শ্রেণিতে। মাস তিনেক আগে প্রতিবেশী বছর একুশের এক যুবকের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা গড়ে ওঠে।

তবে এই সম্পর্ক মানতে চাননি যুবকের পরিবার। অভিযোগ, সম্প্রতি ওই যুবকও মেয়েটির সঙ্গে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চাইছিলেন। এ নিয়ে দু’জনের মধ্যে অশান্তি বাধে। 

মেয়ের মা রিঙ্কু বলেন, ‘‘দু’জন দু’জনকে ভালবাসত। কিন্তু ছেলেটির পরিবার তা মানতে চায়নি। ওরা আমাদের বাড়ি এসে প্রায়ই হুমকি দিত। বলত, আমার স্বামীকে দেখে নেবে। রবিবার সকালে ছেলেটা বাড়িতে এসে মেয়ের উপরে চোটপাট করল। বলল, আত্মহত্যা করো।’’ এরপরেই তুহিনা গলায় দড়ি দেয় বলে অভিযোগ।

বুধবার সকালে আরজিকরে মারা যায় তুহিনা। রাতে দেহ গ্রামে ফেরার পরেই উত্তেজনা ছড়ায়। তুহিনার দেহ ওই যুবকের বাড়ির উঠোনে রেখে শুরু হয় তাণ্ডব। যুবকের পরিবারের লোকজন পালিয়ে যান। আশ্রয় নেন দরের জঙ্গলে। সেখান থেকে পুলিশ পরে তাঁদের উদ্ধার করেন আনে। 

যুবকের মা বলেন, ‘‘আমরা মেয়ের পরিবারের লোকজনকে হুমকি দিইনি। বলেছিলাম, তোমরা মেয়েকে শাসন করো। আমরা আমাদের ছেলেকে শাসন করছি।’’ 

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।