পুজোর আগেই এ রাজ্যে তৃণমূলের সরকার সংখ্যালঘু হয়ে পড়বে বলে মন্তব্য করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। শুক্রবার কাঁচরাপাড়ায় এসে পুলিশকে ‘কড়া’ পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার সেই মাঠেই পাল্টা সভা থেকে পুলিশকে হুঁশিয়ার করলেন বিজেপি নেতারা। তাঁরা রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরে তৃণমূলের ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠা পুলিশ কর্মীদের এ বেলা ও বেলা বদলি করা হবে বলে হুঁশিয়ার করেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। সাংসদ অর্জুন সিংহ বলেন, “আমি দিদির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা করব। উনি এখানে এসে বাঙালি-অবাঙালি লড়াইয়ে ইন্ধন দিয়েছেন।’’ অর্জুনের প্রশ্ন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে থেকে এ সব বলা যায়?” বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরে এটাই ছিল বীজপুরের বিধায়ক মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশুর প্রথম প্রকাশ্য সভা। সেই সভা থেকে তিনি হুমকি দেন, “মাননীয়া (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) বলছেন ওঁর সাংসদ আমাদের থেকে বেশি। কিন্তু আমাদের উপরে আক্রমণ হলে দিল্লিতে ওঁর ২২ সাংসদের বাসভবন আমরা ঘেরাও করব।”