স্টেশনে অপেক্ষারত এক নাবালিকাকে গণধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেফতার করল বসিরহাট থানার পুলিশ। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বসিরহাট স্টেশনে। নাবালিকার চিকিৎসার ব্যবস্থা করে পুলিশ। ধৃত মাটনিয়ার বাসিন্দা ফজের মণ্ডল ও হাসনাবাদের স্টেশনপাড়ার রবি ওরফে ছোট্টু চৌধুরীকে বৃহস্পতিবার বসিরহাটের এসিজেএমের আদালতে তোলা হয়। বিচারক তাদের পাঁচদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, হাসনাবাদের ওই নাবালিকা স্থানীয় হাইস্কুলের নবম শ্রেণিতে পড়ে। বাবা-মা ছাড়াও বাড়িতে রয়েছে তার দাদা ও দুই বোন। বাবা রাজমিস্ত্রির জোগাড়ের কাজ করেন। এ দিন দুপুরে স্কুলের বান্ধবীদের সঙ্গে হাসনাবাদে বনবিবি এবং বসিরহাটে ইছামতী সেতু দেখতে বের হয় সে। সেতু দেখা শেষে বান্ধবীরা চলে গেলেও সে গাড়ি না পেয়ে হাসনাবাদ স্টেশনে এসে দাদাকে ফোন করে তাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য বলে। এ দিকে মেয়েটিকে স্টেশনে একা বসে থাকতে দেখে ফজের ও রবি তার পাশে গিয়ে বসে এবং কেন সে একা স্টেশনে বসে রয়েছে তা জানতে চায়। মেয়েটি জানায়, বাড়ি ফিরতে না পেরে সে দাদার অপেক্ষায় বসে রয়েছে। মেয়েটিকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তাকে ট্রেনে তুলে বসিরহাট স্টেশনে নামে ওই দুই যুবক। সেখানে তারা প্ল্যাটফর্মের পাশে একটি অন্ধকার জায়গা বেছে নিয়ে মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। মেয়েটি চিৎকার করলে আশপাশের যাত্রীরা এসে তাকে উদ্ধার করে। ওই সময়ে রবি পালাতে পারলেও জনতার হাতে ধরা পড়ে গণধোলাই খেতে হয় ফজেরকে।

ততক্ষণে রাত ন’টা বেজে গিয়েছে। বোনের খোঁজে দাদা হাসনাবাদ স্টেশনে গিয়ে তাকে না দেখে পুলিশের দ্বারস্থ হয়। পুলিশের পক্ষে আশপাশের থানাগুলিকে সতর্ক করে দেওয়া হয়। তদন্তে নেমে পুলিশ বসিরহাট স্টেশন এলাকা থেকে ওই নাবালিকাকে উদ্ধার করে। ফজেরকেও গ্রেফতার করে। ভোর রাতে বাড়ি থেকে রবিকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন: আজ-হারেও সব ‘দোষ’ নেহরুর! মাসুদ নিয়ে বিজেপি-কংগ্রেসের নতুন বিতর্কের চিত্রনাট্য

পুলিশ জানায়, দুই মদ্যপ যুবক নাবালিকাকে গণধর্ষণের চেষ্টা করেছিল। ধৃতদের অবশ্য দাবি, মেয়েটিকে তারা বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টাই করছিল। তা হলে কেন মেয়েটিকে বসিরহাট স্টেশনে আনা হল সে বিষয়ে অবশ্য কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি তারা।

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

নাবালিকার বাবা বলেন, ‘‘স্টেশনের লোকজন সময়মতো ওকে না বাঁচালে মেয়ের সর্বনাশ হয়ে যেতে পারত।’’ দ্রুত তদন্তে নেমে অপরাধীকে গ্রেফতার করায় পুলিশকেও তিনি ধন্যবাদ জানান।