• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মাদক বিক্রির অভিযোগে গ্রেফতার মহিলা-সহ ৬ 

Arrest
উদ্ধার হওয়া ইয়াবা ট্যাবলেট। ধৃত মহিলা। ছবি তুলেছেন নির্মল বসু

স্কুল-কলেজের পড়ুয়াদের কাছে চলছে মাদক বিক্রি। এমন তথ্য পুলিশের কাছে ছিল। সোমবার মাদক বিক্রির পান্ডা এক মহিলা এবং বাংলাদেশি-সহ ৬ জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে এক বাংলাদেশিও আছে। সোমবার  তল্লাশি চালিয়ে বসিরহাটের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, পার্ক এবং পানিতর গ্রাম থেকে আঞ্জুরা বিবি, সাদিকুর রহমান, মাহাবুর রহমান গাজি, মনোরঞ্জন ঘোষ, আব্দুল আলিম শেখ এবং সাহিদ মণ্ডলকে ধরা হয়। সাদিকুরের বাড়ি বাংলাদেশে। বাকিরা বসিরহাটের বাসিন্দা। ধৃতদের মঙ্গলবার দুপুরে বারাসত আদালতে তোলা হয়।

বসিরহাট পুলিশ জেলার সুপার কঙ্করপ্রসাদ বাড়ুই বলেন, ‘‘ধৃতদের কাছ থেকে ২৬০০টি ইয়াবা ট্যাবলেট, ৪০ লিটার কোডাইন উদ্ধার করা হয়েছে।’’ তিনি জানান, মাদক বিক্রির বিরুদ্ধে কড়া পুলিশি অভিযানের জন্য এই সাফল্য মিলেছে। বসিরহাটে মাদক বিক্রি বন্ধের জন্য এমন অভিযান জারি রাখা হবে।’’

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কয়েক মাস ধরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, পার্ক অথবা নির্জন জায়গায় কিশোর-কিশোরীদের মদ, গাঁজা, ইয়াবা ট্যাবলেট, ডেনড্রাইডের নেশা করতে দেখা যাচ্ছিল বলে অভিযোগ আসছিল পুলিশের কাছে। শুক্রবার বিকেলে বসিরহাট শহরের একটি স্কুলের পাশে পার্কে বসে ছাত্রছাত্রীদের নেশা করতে দেখে রেগে যান স্থানীয় এক মহিলা। লাঠি হাতে তিনি তেড়ে গেলে মোবাইল, বইপত্র, নেশার সরঞ্জাম ভরা ব্যাগ পুকুরে ফেলে পালায় তারা। মাদকাসক্ত এক ছাত্রীকে ধরে স্কুল কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেন মহিলা। তাঁর কথায়, ‘‘চোখের সামনে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের নেশা করতে দেখে স্থির থাকতে পারিনি। লাঠি হাতে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হই।’’ 

এই ঘটনার পর নড়ে বসে পুলিশ। শনিবার দুপুরে ওই পার্কে অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে গ্রেফতার করে। অভিযোগ, টাউনহলের পিছনে ইছামতী নদীর পাশে, বোডঘাট, মির্জাপুর, স্টেশনরোড, হরিশপুর, ধলতিথা, গোডাইন পাড়া, সাঁইপালা, ভ্যাবলা, রবীন্দ্রভবনের পাশের পার্ক, বদরতলা, আমতলা, দন্ডিরহাট, জিরাকপুর, সংগ্রামপুর, ঢেমঢেমি এবং পানিতর-সহ বসিরহাট শহরের একাধিক জায়গাতে প্রকাশ্যে মাদক খাওয়া চলছে। কোনও কোনও জায়গায় আবার রাস্তার মধ্যে অটো, টোটো দাঁড় করিয়েই নেশা করছে ছেলেমেয়েরা। পুলিশের কাছে খবর আসে পানিতর গ্রামে আঞ্জুরা বিবি নামে এক মহিলা নেশার ট্যাবলেট ইয়াবা-সহ অন্য মাদক বিক্রি করায় স্থানীয় বাসিন্দারা তার বাড়ি ভাঙচুর করেছে। পরে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

সম্প্রতি টাউনহলের পিছনে পার্ক এবং ইটিন্ডার পানিতর সীমান্ত থেকে কয়েক জনকে ধরেছিল পুলিশ। তাদের জেরা করে সাদিকুরের কথা জানা যায়। পুলিশ জানিয়েছে, সাদিকুর মোটা টাকার বিনিময়ে এ দেশ থেকে মাদক বাংলাদেশের ছাত্রছাত্রীদের কাছে পৌঁছে দেয়। পানিতর গ্রামের বাসিন্দা আনজুরা বিবির কাছেও সে মাদক বিক্রি করত। মাদক কারবারিদের মধ্যে অনেক মহিলা আছে বলে জানতে পারছেন তদন্তকারীরা। এ সব রুখতে বিশেষ মহিলা দল তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্তারা। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন