এক তরুণীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় তাঁরই পরিচিত এক কিশোরকে গ্রেফতার করল হাবড়া থানার পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে প্রফুল্লনগর থেকে ধরা পড়ে ওই কিশোর। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ২১ মার্চ বেলা ২টো নাগাদ অনামিকা কর্মকার (২০) নামে ওই তরুণীর নতুনগ্রামের বাড়িতে যায় ওই কিশোর। সঙ্গে ছিল আর একটি মেয়ে। তিনজন মিলে বাইকে ঘুরতে যায়। অনামিকার বাবা মানিক থানায় দায়ের করা অভিযোগে জানিয়েছেন, বিকেল ৪টে নাগাদ একটি অচেনা নম্বর থেকে তাঁর কাছে ফোন আসে। বলা হয়, মেয়ে হাসপাতালে ভর্তি।  তাঁরা হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে দেখেন, চোট পেয়েছে মেয়ে। উপস্থিত কয়েকজন তাঁকে জানান, অনামিকা আয়রা বাইপাস রাস্তার পাশে জখম অবস্থায় পড়ে ছিলেন। তাঁরাই উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। 

হাবড়া থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় অনামিকাকে বারাসত জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে  নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকেএমে। সেখানেই রবিবার মারা যান তিনি। 

আরও পড়ুন: দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

সোমবার মানিক থানায় ওই কিশোরের নামে লিখিত অভিযোগ করেন। তাঁর দাবি, বাইক দুর্ঘটনায় জখম হয়েছিল মেয়ে। মানিকের কথায়, ‘‘দুর্ঘটনা ঘটে থাকলেও ছেলেটি কেন জখম মেয়েকে ফেলে রেখে পালিয়ে গেল? ওর অবহেলার জন্যই মেয়ে মারা গিয়েছে।’’