• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ফের হামলার নালিশ, অশান্ত বারাবনি

BJP
বিজেপির এই অফিস দখল করা হয়েছে বলে অভিযোগ। নিজস্ব চিত্র

Advertisement

কর্মীর বাড়িতে হামলার অভিযোগ থেকে পার্টি অফিস ‘দখল’— বারাবনিতে বিজেপি-তৃণমূল গোলমাল চলল মঙ্গলবারেও। তৃণমূলের বিরুদ্ধে হামলা, ভাঙচুর, মারধরের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। তা অস্বীকার করে তৃণমূলের পাল্টা অভিযোগ, তাদের কর্মীদেরই হুমকি দিচ্ছে বিজেপি। পুলিশ জানায়, এলাকায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

সোমবার বারাবনির গৌরান্ডি হাটতলা, কাটাপাহাড়ি ও জামগ্রাম অঞ্চলে বিজেপির তিনটি কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ওই ঘটনার পরে এলাকা অশান্ত হয়ে ওঠে। কার্যালয়ে ভাঙচুর, কর্মী-সমর্থকদের উপরে হামলার প্রতিবাদ ও দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবিতে বিজেপির তরফে সোমবার রাতে বারাবনি থানায় অভিযোগ করা হয়।

তবে অশান্তি সেখানেই থেকে থাকেনি। বিজেপি নেতারা অভিযোগ করেন, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ গৌরান্ডি লাগোয়া বেগুনিয়া কোলিয়ারি অঞ্চলে তাঁদের সক্রিয় কর্মী ধীমান সিংহের বাড়িতে  হামলা চালায় এক দল দুষ্কৃতী। আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয়। আলমারি ভেঙে জিনিস লুট করা হয়। জামগ্রামে বিজেপির একটি কার্যালয়ও দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিজেপির জেলা সহ-সভাপতি  প্রশান্ত চক্রবর্তীর অভিযোগ, ‘‘আমাদের কর্মীর বাড়িতে হামলা চালানোর পরেই জামগ্রামে গিয়ে দুষ্কৃতীরা একটি পার্টি অফিসের রঙ ও প্রতীক মুছে তৃণমূলের পতাকা টাঙিয়ে দিয়েছে।’’

বিজেপির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূলের বারাবনি ব্লক সভাপতি তথা জেলা পরিষদ সদস্য অসিত সিংহ। তাঁর পাল্টা অভিযোগ, ‘‘সোমবার আমাদের উপরেই আক্রমণ হয়। আমরা কোনও রকম অশান্তি করিনি। কে বা কারা বিজেপি কর্মীর বাড়ি ভাঙচুর করেছে বা কার্যালয় দখল করেছে, আমরা জানি না।’’ তিনি পাল্টা অভিযোগ করেন, পাঁচগাছিয়ার পরে নুনি মোড় অঞ্চল দিয়ে যাতায়াত করার সময়ে হামেশাই তাঁদের কর্মীদের হুমকি দিচ্ছে বিজেপির লোকজন। অসিতবাবু বলেন, ‘‘আমরা বারাবনি থানায় বিষয়টি নিয়ে ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছি।’’ যদিও হুমকি দেওয়ার কথা মানেনি বিজেপি।

মঙ্গলবার দুপুরে নুনি মোড়ে রাস্তার পাশে বিজেপির কার্যালয়ে জড়ো হন বেশ কিছু বিজেপি কর্মী। পুলিশ জানায়, সোমবার গোলমালের পরে ওই অঞ্চলে একটি টহলদার গাড়ি সব সময় রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার দিনভর গৌরান্ডি, জামগ্রাম, কাটাপাহাড়িতে টহল দেওয়া হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষ্মণ ঘোড়ুইয়ের হুঁশিয়ারি, ‘‘বারাবনিতে আমাদের উপরে আক্রমণের প্রতিবাদে জেলা জুড়ে আন্দোলন হবে।’’ তৃণমূলের জেলা সভাপতি জিতেন্দ্র তিওয়ারির পাল্টা বক্তব্য, ‘‘নিজেদের কোন্দল ঢাকতে আমাদের উপরে দোষ চাপাচ্ছে বিজেপি। জনগণই বিচার করবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন