সব কিছু ঠিক থাকলে নতুন বছরে পুরভোটের আর বেশি দেরি নেই। সেই মতো রাজ্য স্তরে প্রস্তুতির ক্ষেত্রে নানা নড়চড় দেখা যাচ্ছে তৃণমূলেও। পাশাপাশি, পূর্ব বর্ধমানের কালনা-সহ জেলার নানা প্রান্তে নিয়মিত তৃণমূলের নানা কর্মসূচি দেখা যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার এক দিনে শহরে চারটি পথসভা করে পুরভোটের প্রস্তুতিতে নামল বিজেপি-ও।

শহরের সুরসাথী মোড়, দুলালমুচির মোড়, সিদ্ধেশ্বরী মোড় ও কালনা বিদ্যুৎ দফতরের কার্যালয়ের সামনে বিজেপি সভাগুলি করে। ওই সভাগুলি থেকে পুরসভার বর্তমান বোর্ডের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন বিজেপি নেতারা। ‘প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা’য় ঘর বিলিতে ‘দুর্নীতি’, ‘কাটমানি’ নিয়ে ঘর দেওয়া, ডেঙ্গি প্রতিরোধে মশা মারার স্প্রে ‘ঠিকমতো’ ব্যবহার না করা, সাফাই না হওয়ার মতো নানা নাগরিক বিষয়ে অভিযোগ করে তৃণমূল পরিচালিত পুরসভার বোর্ডের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁদের আরও অভিযোগ, বহু এলাকায় জলপ্রকল্পের জন্য রাস্তা খোঁড়া হলেও তা সারাই হয়নি। এনআরসি (জাতীয় নাগরিক পঞ্জী) নিয়ে শাসক দল ভুল বোঝাচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়। যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

২০২০-র জানুয়ারিতে চলতি বোর্ডের মেয়াদ শেষ হবে। কিন্তু এখনই এক দিনে একই শহরে চারটি সভা কেন বিজেপির? এ ক্ষেত্রে শহরের রাজনীতির নিয়মিত পর্যবেক্ষকদের একটা বড় অংশের অনুমান, এর প্রধান কারণ দু’টি। প্রথমত, লোকসভা ভোটের ফল। বর্তমানে পুরসভায় তৃণমূলের ১৩ জন এবং সিপিএমের পাঁচ জন কাউন্সিলর রয়েছেন। অথচ, ২০১৯-র লোকসভা ভোটের ফলে দেখা গিয়েছে, পুরসভার ১৮টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১২টিতে এগিয়ে বিজেপি। ছ’টিতে তৃণমূল। সব ওয়ার্ডেই তিন নম্বরে সিপিএম। জনতার ভোট দেওয়ার এই ‘মেজাজ’-কে ধরে রাখতেই তাই নেমে পড়া মাঠে, বলছেন বিজেপির স্থানীয় নেতা, কর্মীদের একাংশ। দ্বিতীয়ত, লোকসভা ভোটে পুরসভা এলাকায় ভাল ফল করলেও সেখানে সে ভাবে কর্মসূচি করতে দেখা যায়নি বিজেপি-কে। এ দিকে, ‘সম্প্রীতি যাত্রা’, ‘দিদিকে বলো’, এনআরসি-র বিরুদ্ধে প্রচার-সহ রাজ্য স্তরের নানা কর্মসূচিকে সামনে রেখে প্রায় প্রতিদিনই মাঠে-ময়দানে দেখা গিয়েছে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের। এই পরিস্থিতিতে, বিজেপি-র ‘শক্তি’ জানান দেওয়াও জরুরি ছিল।

শহরের এক বিজেপি নেতা বলেন, ‘‘পুরভোটকে সামনে রেখেই পথসভার আয়োজন করা হচ্ছে। ধারাবাহিক ভাবে এটা চালিয়ে যাওয়া হবে।’’ দলের অন্যতম জেলা সম্পাদক ধনঞ্জয় হালদারও বলেন, ‘‘তৃণমূল পরিচালিত পুরবোর্ডের দুর্নীতি, ব্যর্থতা নিয়ে মানুষের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। সে  কথা পথসভায় বলা হচ্ছে।’’

যদিও যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল নেতা তথা কালনা পুরসভার পুরপ্রধান দেবপ্রসাদ বাগ বলেন, ‘‘বিজেপির কিছু লোক কয়েকজনকে নিয়ে পথসভা করেছে। মানুষ শোনার আগ্রহও দেখাননি। পুরসভার বিরুদ্ধে যে-যে অভিযোগ করা হচ্ছে, তার সব মিথ্যা।’’