• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পেঁয়াজের বীজে প্রতারণার নালিশ

Onion
প্রতীকী ছবি।
পেঁয়াজের বীজ কিনে প্রতারিত  হওয়ার অভিযোগ করেছেন ভিন্‌ রাজ্যের দশ জন চাষি। বিহারের ফতওয়া থানা এলাকায় ডুমরি গ্রামের ওই চাষিদের অভিযোগ, কালনা ২ ব্লকের ওমরপুর গ্রামের এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে পেঁয়াজের বীজ কিনেছিলেন তাঁরা। কিন্তু অঙ্কুরোদগম হয়নি। কালনা পুলিশের কাছেও মঙ্গলবার বিজেন্দ্র সিংহ নামে এক চাষি অভিযোগ করেছেন।
 
ওই চাষিদের দাবি, ভাল পেঁয়াজ-বীজ মেলায় কালনা থেকে দীর্ঘদিন ধরে তা কেনেন তাঁরা। এ বার ওমরপুর গ্রামের গোলাম মোর্তাজা শেখ নামে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে তিন লক্ষ ২৫ হাজার টাকার বীজ কেনেন। তাঁরা জানান, ১৬ সেপ্টেম্বর ওই বীজ কিনে গ্রামে নিয়ে যান তাঁরা। কিন্ত জমিতে বীজ ছড়ানোর নির্দিষ্ট সময় পরেও দেখা যায় অঙ্কুরোদগম হচ্ছে না। ভুয়ো বীজ কিনে ঠকেছেন, অভিযোগ তাঁদের।
 
এ দিন বুদ্ধদেব পাসোয়ান নামে এক চাষি জানান, এক দালাল মারফত ওমরপুর গ্রামের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীর খোঁজ পেয়েছিলেন তাঁরা। গোপাল চৌধুরী, জহর চৌধুরী, মহাদেব চৌধুরীদের দাবি, আড়াই হাজার টাকা কেজি দরে ১৩০ কেজি পেঁয়াজ-বীজ কিনে নিয়ে যান তাঁরা। কোনও গণ্ডগোল হলে বীজ ফেরত নেওয়ার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছিল। বুদ্ধদেববাবুর দাবি, ‘‘গাছ না বেরনোয় বীজ ফিরিয়ে নিয়ে আসি। কিন্তু ওই ব্যবসায়ী বাড়িতে নেই। দূরে কোথাও গিয়েছেন শুনছি। বীজ ফেরত নেওয়ার আশ্বাস না মেলায় কালনা থানার পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়।’’
 
অভিযুক্ত ব্যবসায়ীর যদিও দাবি, ‘‘আমার নিজের চাষ নেই। এলাকার ছ’জন চাষির কাছে পেঁয়াজের বীজ কিনে অল্প লাভ রেখে ওঁদের বিক্রি করেছিলাম। দেখেশুনে বীজ নিয়ে যাওয়ার পরে এখন খারাপ বললে আমার কিছু করার নেই।’’ তাঁর দাবি, ‘‘পুলিশকে জানিয়েছি, মেদিনীপুর থেকে ফিরে দেখা করব।’’ ওই চাষিরা খারাপ বীজ বলে অন্য বীজ ফেরাতে পারেন বলেও পাল্টা অভিযোগ তাঁর।
 

দীর্ঘদিন ধরে কালনা মহকুমায় উদ্যান পালন বিভাগের দায়িত্বে ছিলেন পলাশ সাঁতরা। বর্তমানে তিনি নদিয়া জেলায় কর্মরত। পলাশবাবুর দাবি, এক বছরের পুরনো পেঁয়াজের বীজ হলে অঙ্কুরোদগম হয় ৬৫ থেকে ৭৫ শতাংশ। দু’বছরের পুরনো হলে তা কমে দাঁড়ায় ৩০ শতাংশে। আরও পুরনো হলে সাধারণত অঙ্কুর বার হয় না। তাঁর দাবি, ‘‘অনেক সময়ে একই রকম দেখতে পাটবীজ সিদ্ধ করে অথবা কালো জিরে পেঁয়াজের বীজের সঙ্গে মিশিয়ে বিক্রি করা হয়। বিষয়টি পরীক্ষা না করা পর্যন্ত বলা সম্ভব নয়।’’ পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি নিয়ে   তদন্ত শুরু হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন