• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আসানসোলে ট্রেনের কামরাতেই রেস্তরাঁ, কফি পার্ক

train
রেলমন্ত্রকের টুইট। ছবি: টুইটারের সৌজন্যে

ট্রেনের বাতিল কামরায় রেস্তরাঁ তৈরি করা হয়েছে (‘রেস্তরাঁ অন হুইলস’)। বুধবার রেলমন্ত্রক টুইট করে বিষয়টি জানিয়েছে। এ দিন থেকে আসানসোল রেল স্টেশন চত্বরে সেই রেস্তরাঁর পথ চলা শুরু হল। পাশাপাশি, বাতিল কামরায় চালু হয়েছে ‘কফি পার্ক’ও। পূর্ব রেলের আসানসোল ডিভিশনের কর্তারা জানান, সংস্থার পুরনো সম্পত্তিকে কাজে লাগিয়ে কী ভাবে আয় বাড়ানো যায়, সে ভাবনা থেকেই এমন পদক্ষেপ।

ডিভিশন সূত্রে জানা যায়, পুরনো সম্পত্তিকে কী ভাবে কাজে লাগানো যায়, সে বিষয়ে জনসাধারণের মতামত জানতে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছিল। সেখানেই শিলিগুড়ি ও আসানসোলের দু’টি বাণিজ্যিক সংস্থা প্রস্তাব দেয়, ট্রেনের বাতিল কামরায় রেস্তরাঁ ও কফি পার্ক করা যেতে পারে। প্রস্তাবগুলি উদ্ভাবনী মনে হওয়ায় তা গ্রহণ করে ডিভিশন।

সেই মতো আসানসোল স্টেশনে চত্বরেই দু’টি বাতিল কামরাকে সাজিয়ে ফেলে রেল। বাইরে থেকে সেই রেস্তরাঁ আর কফি পার্ককে এক ঝলক দেখলে মনে হবে, দু’কামরার ট্রেনই দাঁড়িয়ে রয়েছে। কারণ, প্রায় পঁচিশ বছরের পুরনো দু’টি কামরার এক দিকে ‘তিলোত্তমা’ নামের বাষ্প-ইঞ্জিনটি জোড়া হয়েছে। কিন্তু এই ‘ট্রেনের’ ভিতরে ঢুকলেই নজরে পড়বে শৌখিন চেয়ার, টেবিল, দেওয়ালে তৈলচিত্র।

ডিআরএম (আসানসোল) সুমিত সরকার জানান, কফি পার্কটি শিলিগুড়ির সংস্থাটিকে এবং রেস্তরাঁটি আসানসোলের সংস্থাটিকে চালানোর বরাত দেওয়া হয়েছে। বিনিময়ে সংস্থা দু’টির কাছ থেকে বার্ষিক টাকা পাবে রেল। দিনভর সেখানে খাবার মিলবে। পাশাপাশি, কফি পার্কে থাকছে নানা ধরনের চায়ের ব্যবস্থাও। রেলমন্ত্রকের টুইটে আশাপ্রকাশ করা হয়েছে, এই উদ্যোগের ফলে, আগামী পাঁচ বছরে ৫০ লক্ষ টাকা আয় হবে। ডিভিশনের দাবি, পূর্ব রেলে এমন উদ্যোগ এই প্রথম।

ডিভিশনের রেল-কর্তারা জানান, তাঁদের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়ালও। রেল-কর্তাদের আশা, এই ভাবনাকে স্বাগত জানাবেন শহরবাসীও। যাত্রীদের পাশাপাশি, সাধারণ মানুষও এখানে আসবেন বলে আশা তাঁদের।

ওই কফি পার্ক ও রেস্তরাঁটি ছাড়া, এ দিন আসানসোল স্টেশনে একটি বিশ্রামকক্ষ ও ব্যাটারি চালিত গাড়িরও উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, ‘‘আসানসোল স্টেশনে দেশের নানা প্রান্তের যাত্রীরা আসেন। তাঁদের এবং সঙ্গের জিনিসপত্র বহনের জন্য অনেক দিন ধরেই ব্যাটারিচালিত গাড়ি রাখার আবেদন করা হচ্ছিল।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন