• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কৃষি বিল নিয়ে প্রচারের নির্দেশ

Mukul Roy
দুর্গাপুরে বিজেপি নেতৃত্ব। বৃহস্পতিবার। নিজস্ব চিত্র

কৃষি বিল নিয়ে বিরোধীরা মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে। দলীয় পদাধিকারী ও কর্মীদের সে জন্য বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে। বৃহস্পতিবার দুর্গাপুরে জেলায় দলের পদাধিকারীদের নিয়ে বৈঠকে এই বার্তাই দেন রাজ্যের ভারপ্রাপ্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়।বৃহস্পতিবার দুর্গাপুরের ডিএসপি টাউনশিপের বিদ্যাসাগর অ্যাভিনিউয়ে বিজেপির আসানসোল জেলার সাংগঠনিক পদাধিকারীদের নিয়ে বৈঠকের আয়োজন করা হয়। সেখানে কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বৈজয়বর্গীয় ছাড়াও, ছিলেন দলের নেতা মুকুল রায়, পশ্চিম বর্ধমান জেলা সভাপতি লক্ষ্মণ ঘোড়ুই, সুব্রত মিশ্র, সৌরভ শিকদার, নির্মল কর্মকার প্রমুখ। 

২০২১ সালে রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। দলীয় সূত্রের খবর, তার আগে কৃষি বিল নিয়ে বিরোধীরা যে ভাবে পথে নেমেছেন, তাতে বিজেপি নেতৃত্ব  কিছুটা হলেও চিন্তায় পড়েছেন। দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বিজয়বর্গীয়কে জেলায়-জেলায় গিয়ে এ বিষয়ে পদাধিকারীদের নিয়ে বৈঠকের নির্দেশ দিয়েছেন। এ দিন তাঁর দুর্গাপুরে আসার উদ্দেশ্য ছিল সেটাই, বলে মনে করছেন বিরোধীরাও। পদাধিকারীদের নিয়ে বৈঠক ডাকা হলেও চলে এসেছিলেন কর্মীদেরও অনেকে।

এ দিন কর্মীদের নিজের-নিজের এলাকায় কৃষি বিল নিয়ে প্রচার করার নির্দেশ দেন দলীয় নেতৃত্ব। দুর্গাপুরের বিজেপি নেতা অমিতাভ বন্দ্যোপাধ্যায় বৈঠকে এ বিষয়ে বাংলায় লিফলেট তৈরির আর্জি জানান। বৈঠকের পরে তিনি বলেন, ‘‘আসানসোল জেলায় খুব বেশি কৃষি এলাকা নেই। লিফলেট পেলে আমরা পূর্ব বর্ধমানের মতো কৃষিপ্রধান জেলাতে গিয়েও প্রচার করব।’’ জেলা সভাপতি লক্ষ্মণ ঘোড়ুই বলেন, ‘‘কৃষি বিল এসেছে চাষিদের সুবিধার জন্য। সে কথাই তুলে ধরে বিরোধীদের অপপ্রচার নস্যাৎ করে দেবেন আমাদের দলের কর্মীরা।’’ এ প্রসঙ্গে দুর্গাপুরের তৃণমূল নেতা উত্তম মুখোপাধ্যায়ের মন্তব্য, ‘‘চাষিদের সর্বনাশ করে দেবে এই কৃষি বিল। কৃষকের স্বার্থে আমরা সর্বশক্তি দিয়ে এর বিরোধিতা করব।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন