জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষা। তাই অনেক ছাত্রছাত্রীই কিছুটা স্নায়ুর চাপে ভোগে। সেই চাপ কাটাতে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢোকার আগে পুলিশকর্মীরা পরীক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিলেন ফুল ও কলম। কপালে চন্দনের ফোঁটা দিলেন মহিলা পুলিশকর্মী। মঙ্গলবার মাধ্যমিকের প্রথম দিনে এমন ছবি দেখা গেল আসানসোল ও দুর্গাপুরের এবিভি হাইস্কুলে।

মাধ্যমিকের প্রথম দিনের পরীক্ষা নির্বিঘ্নেই সম্পন্ন হয়েছে জেলায়। কোথাও কোনও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর মেলেনি। জেলায় মাধ্যমিক পরীক্ষা আহ্বায়ক দিব্যেন্দু সাহা জানান, প্রথম দিন পরীক্ষা দিয়েছেন ৩২,২৩৫ জন। অনুপস্থিত ছিলেন ৫৫৯ জন। এ দিন বারাবনির বালিয়াপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা দেওয়ার সময়ে এক ছাত্র অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে বারাবনির কেলেজোড়া ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করানো হয়েছে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, ছাত্রটি সুস্থ রয়েছে।

এ দিন বার্নপুরের একটি পরীক্ষাকেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান পুলিশ কমিশনার লক্ষ্মীনারায়ণ মিনা। দুর্গাপুরের নিউটাউনশিপ থানার এবিএল টাউনশিপে এবিভি হাইস্কুলে মোট তিনটি স্কুলের প্রায় চারশো পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছে। এ দিন পরীক্ষা শুরুর অনেক আগে স্কুলের সামনে পৌঁছে যান পুলিশের সিআই চন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, নিউটাউনশিপ থানার ওসি বিজন সমাদ্দার-সহ পুলিশের কর্মী-আধিকারিকেরা। পরীক্ষার্থীরা কেন্দ্রে আসার পরে তাঁরা তাদের কপালে চন্দনের ফোঁটা, হাতে কলম দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। ছিলেন পুরোহিতও। পরীক্ষা শুরুর আগে পুলিশের এমন উদ্যোগে খুশি পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা। অভিভাবক অনুব্রত দাস, অর্পণ বসুদের কথায়, ‘‘পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকার আগে পুলিশের এমন ব্যবহার পরীক্ষার্থীদের চাপ অনেকটা কমিয়েছে।’’ আসানসোল ওল্ড স্টেশন স্কুলেও পুলিশের তরফে পরীক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানানো হয়।