সেতুর উপর ফুটব্রিজে একাধিক গর্ত। তাতে পড়ে যে কোনও সময় বড় ধরনের বিপদের আশঙ্কা রয়েছে।  গুসকরায় ২বি জাতীয় সড়কে কুনুরের উপরে এই সেতুটি নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন বাসিন্দা ও যাত্রীরা। বিষয়টি ইতিমধ্যে প্রশাসনের নজরে এনে অবিলম্বে তা মেরামতির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। গর্তগুলি মেরামতির আশ্বাস দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফেও। সেতুটির অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে মেরামতির জন্য জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছেন আউশগ্রামের বিধায়ক অভেদানন্দ থান্দার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ধমান ও বীরভূমের যোগাযোগের জন্য গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উপরে এই সেতুটির ফুটব্রিজে বড়-বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। বছর পঞ্চাশ আগে গড়া সেতুটির সংস্কার না হওয়ায় সেটির হাল বিপজ্জনক। মাঝেমধ্যে উপরের অংশে রঙের প্রলেপ পড়লেও নীচে অনেক জায়গা থেকেই সিমেন্টের চাঙড় খসে পড়ে বলে এলাকাবাসীর একাংশের দাবি। রডও বেরিয়ে পড়েছে কিছু জায়গায়। এই সেতু দিয়ে দৈনিক প্রায় হাজারখানেক মালবাহী গাড়ি, বাস, ছোট গাড়ি, মোটরবাইক যাতায়াত করে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, গর্ত এতটাই বড় যে পা হড়কে নদীতে গিয়ে পড়ে যেতে পারেন পথচারীরা। স্থানীয় বাসিন্দা সুকান্ত ঘোষের দাবি, ‘‘এই সংকীর্ণ সেতুটি এমনিতেই দুর্ঘটনাপ্রবণ। যানজটও লেগে থাকে। দুর্ঘটনা এড়াতে সেতুর ফুটপাথ দিয়ে যাতায়াতও নিরাপদ নয়। সামান্য অন্যমনস্ক হলেই প্রাণ যেতে পারে।’’ 

ইতিমধ্যে গর্তে পড়ে তিন জন আহত হয়েছেন বলেও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। এলাকার বাসিন্দা পম্পা রায়ের অভিযোগ, ওই এলাকাতেই শিশুদের স্কুল রয়েছে। পড়ুয়াদের বেশির ভাগ ওই সেতুর উপর দিয়ে হেঁটে যাতায়াত করে। গর্তে পা পড়ে যাতে কোনও বিপদ না ঘটে সে জন্য প্রশাসনকে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানান তিনি। রাতে সমস্যা আরও বাড়ে বলেও স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ।

আউশগ্রাম ১ বিডিও চিত্তজিৎ বসু জানান, সমস্যা সমাধানের জন্য বিষয়টি জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।