বিজেপির দু’টি গোষ্ঠীর মধ্যে ‘অশান্তি’ বাধল কাঁকসায়। বুধবার বিকালে ঘটনাটি ঘটেছে পানাগড় গ্রাম এলাকায় বিজেপিতে যোগদান অনুষ্ঠানেই গোলমাল থেকে হাতাহাতি বেধে যায়। এক পক্ষের দাবি, এই ঘটনায় তাঁদের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। কাঁকসার বিজেপি নেতা রমন শর্মা অবশ্য দাবি করেন, সিপিএম এবং তৃণমূল তাঁদের অনুষ্ঠান বানচাল করতে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। 

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন পানাগড় গ্রামের ওই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দল থেকে বেশ কিছু লোকজনের বিজেপিতে যোগদানের কথা ছিল। বিজেপি নেতা রমনবাবু সেখানে হাজির হন। কিন্তু অনুষ্ঠান শুরুর সময়েই পানাগড় গ্রামের বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী-সমর্থক মঞ্চের কাছে এসে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। তাঁদের দাবি, দলে যোগদানের অনুষ্ঠান হচ্ছে, তা গ্রামেরই কোনও নেতা-কর্মী জানেন না। 

এলাকার বিজেপি নেতা মানস তিওয়ারি দাবি করেন, তাঁরা সিপিএম-তৃণমূলের সঙ্গে লড়াই করে সংগঠন তৈরি করেছেন। অথচ, এখন তাঁরাই ব্রাত্য হয়ে পড়ছেন। তাঁর অভিযোগ, ‘‘যাদের হাতে আমরা মার খেয়েছি, এখন তাদেরই দলে নিচ্ছেন নেতারা। এর কারণ জানতে চাওয়ায় দলেরই কিছু লোকজন আমাদের উপরে ঝাঁপিয়ে পড়েন।’’ মানসবাবুর দাবি, এই ঘটনায় তাঁদের জনা পাঁচেক কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁদের পানাগড় ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি দলের উচ্চ নেতৃত্বকে জানানো হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

রমনবাবুর অবশ্য বক্তব্য, ‘‘সারা রাজ্যেই বিজেপিতে যোগদান চলছে। এখানেও তেমন অনুষ্ঠান করা হয়েছে। সিপিএম এবং তৃণমূল যৌথ ভাবে অনুষ্ঠানটি বানচাল করার চেষ্ঠা করছে।’’ এ দিন তৃণমূলের বেশ কয়েকজন বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন বলে তাঁর দাবি। যদিও তৃণমূল তা মানতে চায়নি। ঘটনার সঙ্গে তাদের কোনও যোগের কথা মানতে চাননি তৃণমূল ও সিপিএম, দু’দলের নেতারাই। পুলিশ জানায়, এলাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে কোনও পক্ষই বুধবার রাত পর্যন্ত পুলিশে অভিযোগ করেনি।