অ্যালয় স্টিল প্ল্যান্টে (এএসপি) বিলগ্নিকরণ না করার দাবিতে ৩ এপ্রিল কলকাতায় ধর্মতলার ওয়াই চ্যানেলে বিক্ষোভের ডাক দিল কারখানার বামেদের সব ক’টি শ্রমিক সংগঠন এবং আইএনটিইউসি। তার পরে ১১ এপ্রিল ধর্মঘটও ডেকেছে সংগঠনগুলি। বিএমএস এবং আইএনটিটিইউসি অবশ্য ধর্মঘট থেকে নিজেদের বাইরে রাখছে।

এএসপি-র তৈরি বিশেষ ধরনের মিশ্র ইস্পাত প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে, মহাকাশ গবেষণা-সহ নানা গুরুত্বপূর্ণ কাজে লাগে। কিন্তু লাগাতার লোকসানে চলছে এই কারখানা। অলাভজনক সংস্থা চালাতে আর উৎসাহী নয় বলে ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। ভদ্রাবতী, সালেমের ইস্পাত কারখানা এবং দুর্গাপুরের এএসপি-র বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্ত আর্থিক বিষয়ক (ইকোনমিক অ্যাফেসার্স) ক্যাবিনেট কমিটি অনুমোদন করেছে।

এর পরেই অবিলম্বে সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে বাম শ্রমিক সংগঠনগুলি এবং আইএনটিইউসি যৌথ আন্দোলন করছে। আলাদা ভাবে কর্মসূচি নিচ্ছে আইএনটিটিইউসি-ও। তবে বিএমএস এখনও পর্যন্ত কোনও কর্মসূচির কথা জানায়নি।  ইতিমধ্যে দিল্লিতে গিয়ে সিটু এবং আইএনটিইউসি নেতৃত্ব কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছেন। সিপিএম সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যসভায় সরব হয়েছেন। সম্প্রতি কারখানার মূল্য নির্ধারণের প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে বলে কর্মী সংগঠনগুলির দাবি।

সিটু অনুমোদিত ‘হিন্দুস্থান স্টিল এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন’-এর ডিএসপি-র যুগ্ম সম্পাদক সৌরভ দত্ত বলেন, ‘‘তিনটি রাষ্ট্রায়ত্ত কারখানা বাঁচাতে একযোগে আন্দোলন চলছে।’’ তিনি জানান, সালেমের কারখানায় ৩ এপ্রিল জয়েন্ট অ্যাকশন ফোরামের ডাকে স্থানীয় ভাবে ধর্মঘট হবে। সে দিন দুর্গাপুরের এএসপি এবং ভদ্রাবতী কারখানার জন্য শ্রমিক সংগঠনগুলি নিজেদের রাজ্যের রাজধানীতে কর্মসূচি নিয়েছে। এএসপি-র জন্য ওয়াই চ্যানেলে বিক্ষোভ ও রাজ্যপালের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হবে। ১১ এপ্রিল তিনটি কারখানাতেই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। সে দিন দেশের বাকি রাষ্ট্রায়ত্ত ইস্পাত কারখানাগুলির গেটে সকাল ৫টা থেকে ৯টা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি চলবে। সোমবার সালেমে বিএমএস বাদে সব ক’টি কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠন সম্মিলিতি ভাবে এই সব কর্মসূচি চূড়ান্ত করেছে বলে সৌরভবাবু জানান।