কেন্দ্রের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিলগ্নিকরণ ও কোলিয়ারি বন্ধের চেষ্টার অভিযোগে জেলার নানা প্রান্তে অবস্থান-বিক্ষোভ করল নানা শ্রমিক সংগঠন। মঙ্গলবার ইসিএলের ১৩টি এরিয়া কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ দেখায় কেকেএসসি। দুর্গাপুরে এএসপি কারখানার গেটে বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখায় আইএনটিটিইউসি এবং বিএমএস।

কেন্দ্র ৪২টি রাষ্ট্রায়ত্ত কারখানা বিলগ্নিকরণের চেষ্টা করছে অভিযোগে এ দিন বিভিন্ন খনির এরিয়া কার্যালয়ের সামনে সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত বিক্ষোভ দেখায় কেকেএসসি। তার পরে এরিয়া কর্তৃপক্ষের হাতে দাবিপত্র দেওয়া হয়। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হরেরাম সিংহ অভিযোগ করেন, ইতিমধ্যে ইসিএলের ২০টি ভূগর্ভস্থ খনি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কয়লা মজুত থাকা সত্ত্বেও অন্য নানা ভূগর্ভস্থ খনি বন্ধ করার চক্রান্ত চলছে। প্রতিটি খনির উপরিভাগে খোলামুখ খনি চালু করে আউটসোর্সিং-এর মাধ্যমে কয়লা কাটার পরিকল্পনা হয়েছে। এ ভাবে খনিগুলি বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে তাঁদের দাবি। হরেরামবাবু জানান, সংসদে এ নিয়ে তৃণমূল বিরোধিতায় নেমেছে। কেকেএসসি-র তরফে নিয়মিত এরিয়া কার্যালয়ে বিক্ষোভ দেখানো হবে।

সিটু, আইএনটিইউসি-সহ অন্য নানা শ্রমিক সংগঠনের দাবি, রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পরে তারা বার তিনেক এই দাবিতে খনি বন্ধ করে প্রতিবাদ আন্দোলন করেছে। কিন্তু কেকেএসসি তাতে শামিল হয়নি। এখন সমস্যা বুঝে তারাও উদ্যোগী হয়েছে।

দুর্গাপুরে এএসপি-র বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এ দিন আইএনটিটিইউসি এবং বিএমএসের ডাকে কারখানার গেটে বিক্ষোভ হয়। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ২০১৭ সাল থেকে আন্দোলন করছে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন। শ্রমিক নেতারা জানান, ৪ জুলাই সেল নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করে দুর্গাপুরের এএসপি, ভদ্রাবতী আয়রন অ্যান্ড স্টিল লিমিটেড এবং সালেম স্টিল প্ল্যান্টের বিলগ্নিকরণের জন্য গ্লোবাল টেন্ডার ডেকেছে। প্রতিবাদে শুক্রবার সিটু, আইএনটিইউসি ও কয়েকটি শ্রমিক সংগঠন একজোট হয়ে বিক্ষোভ দেখায়। শনিবার বিজেপি সাংসদ সুরেন্দ্র সিংহ অহলুওয়ালিয়া বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে বৈঠক করেন। যদিও সেখানে সিটু এবং আইএনটিটিইউসি-র কেউ ছিলেন না।

এ দিন সকালে আইএনটিটিইউসি কারখানার গেটে বিক্ষোভ দেখায়। কেন্দ্র সিদ্ধান্ত বাতিল না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে জানান সংগঠনের নেতারা। তাঁদের আরও দাবি, রাজনৈতিক রং না দেখে শ্রমিকদের ও শহরের স্বার্থে সব শ্রমিক সংগঠনকে একজোট হয়ে আন্দোলন সংগঠিত করা হবে। লোকসভা ভোটের আগে কখনও আলাদা ভাবে, আবার কখনও যৌথ ভাবে আন্দোলন হয়েছে।

এ দিন দুপুরেই কারখানার গেটে বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিএমএস প্রভাবিত ‘দুর্গাপুর মিশ্র ইস্পাত কর্মচারী সঙ্ঘ’ বিক্ষোভ দেখায়। বিএমএস নেতা অরূপ রায়, অসীম প্রামাণিকেরা জানান, কেন্দ্র বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। কারখানার আধুনিকীকরণের পক্ষে সওয়াল করেন তাঁরা।