• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ব্যাঙ্কের ভল্ট কেটে লুট

Loot
বাঁ দিকে, এ পথেই ব্যাঙ্কে ঢোকে দুষ্কৃতীরা। ডান দিকে, এই ভল্ট থেকেই লুটপাট চলে। নিজস্ব চিত্র

একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের শাখার ভল্ট কেটে লক্ষাধিক টাকা লুট করল দুষ্কৃতীরা। সোমবার রাতে  পশ্চিম বর্ধমানের কাঁকসার কুলডিহা গ্রামের ঘটনা। মঙ্গলবার সকালে ব্যাঙ্ক খোলার পরে বিষয়টি নজরে পড়ে কর্মীদের।  লুটপাটের পাশাপাশি, ছ’টি সিসিটিভি (‌‌ক্লোজ়ড সার্কিট) ক্যামেরাও ভেঙে ফেলা হয়েছে বলে জানান ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ। 

ব্যাঙ্ক সূত্রে জানা যায়, এ দিন সকাল ১০টা নাগাদ ব্যাঙ্ক খোলার সময়ে বাইরে থেকে কিছু বোঝা যায়নি। তবে ভিতরে ঢুকে দেখা যায়, ভিতরের সব জিনিস লন্ডভন্ড। ভল্টরুমের দিকে গিয়ে দেখা যায়, ঘরটির দরজা হাট করে খোলা। ভল্টের বাঁ দিকের অংশ গ্যাস কাটার দিয়ে কেটে ৪ লক্ষ ১৬ হাজার ২৩০ টাকা লুট করা হয়েছে বলে অভিযোগ শাখা ম্যানেজার তন্ময় কবিরাজের। তিনি আরও জানান, ভল্টের নীচের অংশ কাটতে না পারায় বাকি টাকা লুট করতে পারেনি দুষ্কৃতীরা। 

প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানায়, ব্যাঙ্কটি একটি ভাড়াবাড়িতে রয়েছে। বাড়ির পিছন দিকের অংশ অব্যবহৃত ও তালাবন্ধ। দুষ্কৃতীরা প্রথমে বাড়ির পিছন দিকে থাকা গেটের তালা ভাঙে। তার পরে ঘরে ঢোকে। দেওয়ালের ওপারেই ভল্টরুম। দেওয়ালের মাঝে রয়েছে একটি জানালা। সেই জানালার রড গ্যাস কাটারের সাহায্যে কেটে ভল্টরুমে ঢোকে দুষ্কৃতীরা। 

তদন্তকারীদের অনুমান, ঘটনাটি ঘটেছে রাত সাড়ে ১২টা থেকে ১টার মধ্যে। আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের এসিপি (কাঁকসা) সন্দীপ কররা জানান, ‘হার্ডডিস্ক’ থেকে ‘সিসিটিভি ফুটেজ’ নিয়ে প্রাথমিক ভাবে দেখা যাচ্ছে, তিন জন দুষ্কৃতী এই কাণ্ড ঘটিয়েছে।

ব্যাঙ্কে ওই সময়ে অ্যালার্মও বেজেছিল বলে দাবি ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের। তবে তা বুঝতে পারেননি এলাকাবাসী। স্থানীয় বাসিন্দা সন্দীপন বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রিয়ব্রত মুখোপাধ্যায়েরা বলেন, ‘‘ফাঁকা মাঠের মধ্যে একটি বাড়িতে ব্যাঙ্কটি রয়েছে। মাঝরাতে একটা আওয়াজ পেয়েছিলাম। কিন্তু তা অ্যাম্বুল্যান্সের আওয়াজ ভেবে সন্দেহ হয়নি।’’

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ব্যাঙ্কে রাতে কোনও নিরাপত্তারক্ষী নেই। এলাকাবাসীর দাবি, ব্যাঙ্কে রাতে রক্ষী মোতায়েন করতে হবে। বাড়াতে হবে পুলিশ-পাহারাও। ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকর্তারা এলাকাবাসীর দাবি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন