• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ব্যবস্থা ফেরিঘাটেও

দুর্ঘটনা রুখতে অবশেষে নজর অজয়-দামোদরে

water
টনক নড়ে দুর্ঘটনার পরে। —ফাইল চিত্র।

স্নান করতে নেমে বারবার অজয় ও দামোদরে তলিয়ে যাওয়ার ঘটনায় অবশেষে নড়ে বসল প্রশাসন। বার্নপুর ও জামুড়িয়ার নানা ফেরিঘাটে সতর্কতামূলক বোর্ড ও নজরদারির সিদ্ধান্ত নিয়েছে মহকুমা প্রশাসন। সম্প্রতি এ নিয়ে একটি বৈঠকও করেছেন মহকুমাশাসক (আসানসোল) প্রলয় রায়চৌধুরী।

সম্প্রতি চিত্তরঞ্জনে অজয়ের তীরে বেড়াতে গিয়ে তলিয়ে যান দুগার্পুরের একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্র। পরে তাঁর দেহ উদ্ধার হয় পাণ্ডবেশ্বরে। সেই একই দিনে বার্নপুরে দামোদরে স্নান করতে নেমে তলিয়ে যায় নবম ও দশন শ্রেণির তিন ছাত্র। পরে বার্নপুর ও রানিগঞ্জ থেকে তাঁদের দেহ মেলে।

এই ঘটনা প্রথম নয়। আগেও একাধিক বার অজয়-দামোদরে স্নান করতে নেমে তলিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আসানসোলের মহকুমাশাসক প্রলয় রায়চৌধুরী জানান, মাস কয়েক আগে কালনাতেও বড়সড় নৌকাডুবি হয়। তিনি বলেন, ‘‘এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি বন্ধ করতে জেলাশাসকের নির্দেশে আমরা একাধিক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’’ তিনি জানান, বার্নপুর ও জামুড়িয়ায় যে সমস্ত ফেরিঘাট রয়েছে সেখানে নিরাপদে যাত্রী পারাপার নিশ্চিত করতে কিছু পদক্ষেপ করা হচ্ছে। পুরসভার তরফে বিপজ্জনক অঞ্চলগুলিতে সতর্কতামূলক বোর্ড লাগানো হবে। যেখানে স্থানীয় থানা এবং বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের ফোন নম্বর এবং পদাধিকারীদের নাম ও নম্বর দেওয়া থাকবে। দেখা হবে, নৌকা চালকদের বৈধ লাইসেন্স রয়েছে কি না। নৌকায় নিয়ম ভেঙে বেশি যাত্রী তোলা হচ্ছে কি না, বিপজ্জনক ভাবে সামগ্রী বোঝাই করা হচ্ছে কি না, সে সব দিকেও খেয়াল রাখা হবে বলে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে।

প্রশাসন সূত্রে থেকে জানা গিয়েছে, হিরাপুর থানার বার্নপুরে কালাঝড়িয়া থেকে বাঁকুড়ার শালতোড়ের নদীপথে যোগাযোগ রয়েছে। এই দুই এলাকার বাসিন্দারা নিয়মিত নৌকায় দামোদর পেরিয়ে অন্য এলাকায় যাতায়াত করেন। জামুড়িয়া থানার দরবারডাঙা থেকে অজয়ের মাধ্যমে নদীপথে বীরভূমের একাধিক গ্রামের যোগাযোগ রয়েছে। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, জামুড়িয়া ফেরিঘাটে নৌকা চলাচলের জন্য বীরভূম জেলা প্রশাসন এবং কালাঝড়িয়া ফেরিঘাটে নৌকা চলাচলের জন্য বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন নৌকা চালকদের অনুমতি দেয়।

ডুবে মৃত্যু। জলে ডুবে মৃত্যু হল এক বৃদ্ধের। শনিবার দুর্গাপুরের ইস্পাতনগরীর কনিষ্ক এলাকায় মৃতের নাম সমীর ঘোষ (৬১)। বাড়ি বেনাচিতির উত্তরপল্লিতে। এ দিন দুপুরে পুকুরে স্নান করতে নেমে তলিয়ে যান তিনি। প্রথমে স্থানীয় বাসিন্দারা, পরে পুলিশ উদ্ধারে নামে। ঘণ্টাখানেক পরে দেহ মেলে।  দেহ ময়না-তদন্তে পাঠানো হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন