দুই ছেলে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে সম্পত্তি দখল করায় সস্ত্রীক মেয়ের বাড়িতে দিন কাটাতে হচ্ছে তাঁকে, প্রশাসনের নানা স্তরে এমন অভিযোগ করলেন এক বৃদ্ধ। পূর্বস্থলী ১ ব্লকের নাদনঘাটের দীর্ঘপাড়ার বাসিন্দা ফরজ আলি মণ্ডল মুখ্যমন্ত্রীর দফতর, জেলা পুলিশ সুপার, রাজ্য মানবাধিকার কমিশন, এসডিপিও (কালনা), মহকুমাশাসককে চিঠি দিয়ে নিজের বাড়িতে বসবাসের ব্যবস্থা করার আর্জি জানিয়েছেন।

বছর আশির ফরজ আলি জানান, বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছেন তিনি ও তাঁর স্ত্রী, বছর বাহাত্তরের সৈয়দা বিবি। তাঁদের দুই ছেলে ও চার মেয়ে রয়েছেন। দুই ছেলে আক্তার মণ্ডল ও আজফার মণ্ডলের নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ বৃদ্ধের। প্রশাসনকে পাঠানো চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, তাঁর নামে থাকা ভিটে, জমি, পুকুর-সহ যাবতীয় সম্পত্তি দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের নামে লিখিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে ছেলেরা। সে জন্য তাঁকে প্রাণে মারার চেষ্টাও করা হয়েছে বলে তাঁর অভিযোগ। 

ফরজ আলি অভিযোগ করেন, একটি জমি বিক্রি করে তিনি দোতলা বাড়ি তৈরি করেছিলেন। সেটিও দুই ছেলে নিজেদের নামে লিখিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। স্ত্রীর নামে তিনি কিছু সম্পত্তি কিনেছিলেন। মাস তিনেক আগে ছেলেরা সমস্ত সম্পত্তি জোর করে কেড়ে নিয়ে তাঁদের বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। বাধ্য হয়ে তাঁদের আশ্রয় নিতে হয় কালনার নান্দাই পঞ্চায়েতের নতুনগ্রামে মেজো মেয়ের বাড়িতে। বুধবার কালনা হাসপাতালে অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে এসেছিলেন বৃদ্ধ। তাঁর দাবি, বিঘা কুড়ি সম্পত্তি দুই ছেলে জোর করে কেড়ে নিয়েছে। বৃদ্ধ বয়সে চিকিৎসার জন্য নানা ভাবে অর্থ জোগাড় করতে হচ্ছে।

এ দিন বৃদ্ধার বড় ছেলে আক্তারকে ফোন করা হলে তিনি বাড়িতে নেই বলে জানানো হয়। আজফারকে ফোন করা হলে তিনি তা ধরেননি। কালনার মহকুমাশাসক নীতিশ ঢালি জানান, এক বৃদ্ধ লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নাদনঘাটের ওসিকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। পুলিশ জানায়, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।