• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নিষেধে কাজ ব্যারাজে, দেউল পার্কে ‘বেনিয়ম’

Durgapur Barrage
লাইফ জ্যাকেট পরে নৌকাবিহার ব্যারাজে। ছবি: বিকাশ মশান

বেনিয়মের ছবি অনেকটাই পাল্টাল দুর্গাপুর ব্যারাজে। কিন্তু কাঁকসার দেউল পার্কে তা হল না। বুধবার বছরের প্রথম দিনে পিকনিকে দেদার নিয়ম ভাঙার সাক্ষী থাকল দেউল পার্ক।

প্রশাসন ও বন দফতরের তরফে আগেই ‘গ্রিন পিকনিক মিশন’-এর কথা বলা হয়েছিল। সে জন্য প্লাস্টিক, থার্মোকলের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়। শব্দের তাণ্ডব বন্ধ করতে নিষিদ্ধ করা হয় ডিজে সাউন্ডবক্স। নজরদারির দায়িত্বে ছিলেন স্বেচ্ছাসেবকেরা। সহযোগিতা করে পুরসভাও। বড়দিন বা তার পরের দিনগুলিতে পিকনিকে আসা মানুষজন অনেকটাই নিয়ম মেনেছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। কিন্তু লাইফ জ্যাকেট ছাড়া নৌকায় চড়ায় নিষেধাজ্ঞা বড়দিনের দিন পর্যটকদের মানতে দেখা যায়নি দুর্গাপুর ব্যারাজের কাছে দামোদরে। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এর পরেই ২৬ ডিসেম্বর লাইফ জ্যাকেট ছাড়া নৌকায় চড়ার ব্যাপারে কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। তবে মাঝে ক’দিন পুলিশ সে ভাবে নজরদারি না করায় তা বিশেষ মানা হয়নি বলে অভিযোগ। বুধবার অবশ্য ব্যারাজে গিয়ে দেখা যায়, লাইফ জ্যাকেট ছাড়া নৌকায় চড়তে দেওয়া হচ্ছে না। বাজেনি ডিজে বক্স। প্লাস্টিক, থার্মোকলের ব্যবহারও সে ভাবে নজরে আসেনি। প্লাস্টিকের গ্লাস দু’একটি পড়ে থাকলেও তা স্বেচ্ছাসেবকেরা নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলে দিয়েছেন। সব মিলিয়ে, এ দিন ‘গ্রিন পিকনিক মিশন’ প্রায় সফল বলে দাবি করেন ব্যারাজে পিকনিকে আসা মানুষজন।

কিন্তু এর প্রায় উল্টো ছবি ধরা পড়ে কাঁকসার দেউল পার্কে। অজয়ের পাড়ে বহু বাস, ট্রাক, গাড়িতে করে পিকনিকে আসেন অনেকে। বামুনাড়ার একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে গত কয়েকদিন ধরে দেউল পার্কে পরিবেশ সচেতনতার কাজ করছেন ‘সবুজ বাহিনী’র স্বেচ্ছাসেবকেরা। সংস্থার তরফে সমীর রায় অভিযোগ করেন, এদিন স্বেচ্ছাসেবকেরা পরিবেশ বিধির কথা বলতে গিয়ে আক্রান্ত হন। পর্যাপ্ত পুলিশ না থাকায় শেষ পর্যন্ত তাঁরা ফিরে আসতে বাধ্য হন। যদিও পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। সমীরবাবু দাবি করেন, ‘ ‘ধারাবাহিক ভাবে প্রচার চলছে। তবু পিকনিক করতে এসে নিয়ম ভাঙার রেওয়াজ কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন