মোটরবাইকের ধাক্কায় এক বালিকার মৃত্যুর প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেলে দেহ রেখে রাস্তা অবরোধের ঘটনা ঘটল দুর্গাপুরের মায়াবাজার এলাকায়। এর জেরে ব্যাপক যানজট হয় ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাত ৯টা নাগাদ মায়াবাজারের কদমতলায় হ্যানিম্যান সরণিতে রাস্তা পারাপার করার সময়ে মোটরবাইকের ধাক্কায় জখম হয় নেহা কুমারী পণ্ডিত (৯) নামে ওই বালিকা। প্রথমে তাকে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ও পরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ওই বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ-তে চিকিৎসাধীন ছিল নেহা। শুক্রবার সকালে সেখানেই মৃত্যু হয় ডিটিপিএস প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী নেহার।

এর পরেই বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ নেহার দেহ হাসপাতাল থেকে এনে রাস্তায় রেখে বিক্ষোভ শুরু করেন এলাকাবাসীর একাংশ। তাঁদের অভিযোগ, যে মোটরবাইকটি ধাক্কা মেরেছিল সেটি সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য পুলিশকে দেওয়া হলেও এ পর্যন্ত কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি। বিক্ষোভকারীরা মোটরবাইক চালককে দ্রুত গ্রেফতার এবং মৃতের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি জানান। নেহার বাবা সন্তোষবাবুর ক্ষোভ, ‘‘হ্যানিম্যান সরণি দিয়ে বেপরোয়া ভাবে মোটরবাইক-সহ অন্য যানবাহন চলাচল করে। রাস্তার দু’দিকে জনবসতি রয়েছে। নানা প্রয়োজনে দু’দিকের মানুষকেই রাস্তা পারাপার করতে হয়। যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা না হলে ফের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’’

অবরোধ, যানজটের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। শেষমেশ পুলিশ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার আশ্বাস দিলে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা নাগাদ অবরোধ ওঠে। ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয় যান চলাচল।