• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পাথরঘাটায় স্বাস্থ্য-বিধি ভেঙে সমাবেশের নালিশ

বিজেপির পাল্টা জমায়েত তৃণমূলের

TMC
দূরত্বের বালাই নেই, এক সঙ্গে বসে সভা। রবিবার কালনার পাথরঘাটা গ্রামে। নিজস্ব চিত্র

গণপিটুনিতে এক মৃৎশিল্পীর মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে আন্দোলনে নেমেছিল বিজেপি। এ বার পাল্টা সভা করল তৃণমূল। রবিবার কালনার পিন্ডিরা পঞ্চায়েতের পাথরঘাটা গ্রামে সভা করল তারা। ব্লকের আটটি পঞ্চায়েত থেকে অনেকে জড়ো হলেন সেখানে। স্বাস্থ্য-বিধির তোয়াক্কা না করেই সভা হয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর একাংশের।

পাথরঘাটা গ্রামে নিহত রবিন পালের পরিবারের সঙ্গে কিছু দিন আগে দেখা করে যান বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। পরে কালনা শহরে বিজেপির তরফে বিক্ষোভ-কর্মসূচি করা হয়। ছিলেন দলের রাজ্য সহ-সভাপতি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে বিজেপি নেতারা জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথের উদ্দেশ্যে কটুক্তি করেন বলে অভিযোগ। তৃণমূলের তরফে সে নিয়ে কালনা থানায় লিখিত অভিযোগও করা হয়েছে। 

তৃণমূল সূত্রে জানা যায়, কালনায় বিজেপির কর্মসূচির পরেই বিষয়টি নিয়ে দলের তরফে পাল্টা সভা করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়। এ দিন পাথরঘাটা গ্রামে ব্লক তৃণমূলের সভায় ৮টি পঞ্চায়েত এলাকা থেকে দলের নেতা-কর্মীরা ট্রাক্টরে করে আসেন। সভা থেকে প্রায় কিলোমিটার দু’য়েক এলাকা জুড়ে রাস্তার দু’পাশ দলীয় পতাকায় মুড়ে দেওয়া হয়।

সভায় ব্লক তৃণমূল সভাপতি প্রণব রায়ের অভিযোগ, ‘‘ঘটনাটি নিয়ে নোংরা রাজনীতি করা হচ্ছে। সত্যিটা পাথরঘাটা গ্রামের মানুষ জানেন।’’ নিহতকে দলের কর্মী বলে দাবি করেছে বিজেপি। প্রণববাবু তা মানতে চাননি। তাঁর দাবি, মৃতের পরিবারকে দিয়ে বেছে-বেছে তৃণমূলের লোকজনের নামে মিথ্যা অভিযোগ করানো হচ্ছে। তাঁর বক্তব্য, ‘‘অথচ, সে দিন যেখানে একশো দিনের কাজ হচ্ছিল সেখানে সব দলের লোকজন ছিলেন। এমনকি, মৃতের ভাইও ছিলেন। রাজ্য জুড়ে মিথ্যা প্রচারের উদ্দেশ্যেই বিজেপি ঘোলা জলে মাছ ধরে।’’ 

দলের রাজ্যের অন্যতম মুখপাত্র দেবু টুডুর অভিযোগ, ‘‘পাথরঘাটা গ্রামে লাশ নিয়ে রাজ্য জুড়ে উত্তেজনা ছড়ানোর জন্য বিজেপি মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে।’’ এ দিন সভায় মানুষের ভিড়ে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা নিয় প্রশ্ন করা হলে দেবুবাবুর দাবি, ‘‘বিজেপি এত মিথ্যা কথা বলছিল যে সাধারণ মানুষ আর ঘরে থাকতে চাননি।’’ এ দিন সভায় ছিলেন কালনা ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি নীলিমা কপ্তি, জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক বাপ্পাদিত্য বন্দ্যোপাধ্যায়, কালনা শহর সভাপতি দেবপ্রসাদ বাগেরা।

বিজেপির জেলা সহ-সভাপতি ধনঞ্জয় হালদারের অবশ্য বক্তব্য, ‘‘পাথরঘাটা গ্রামে আমাদের কর্মীকে নৃশংস ভাবে খুন করা হয়েছে। এলাকার মানুষ প্রতিবাদে সরব হয়েছেন। এখনও ঘটনার মূল অভিযুক্ত গ্রেফতার হয়নি। যত দিন না সব অভিযুক্তকে ধরা হচ্ছে, আমাদের আন্দোলন চলবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন