• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নেতার বাড়ির সংযোগ কাটতে যাওয়ায় ‘মারধর’

electric line
প্রতীকী চিত্র।

ছ’মাসের বিল বকেয়া থাকায় এক তৃণমূল নেতার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ কাটার নির্দেশ দিয়েছিলেন রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন নিগমের গুসকরার অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার সঞ্জয় মণ্ডল। সেই মতো বুধবার দুপুরে সংযোগ কাটতে যান ঠিকাদার সংস্থার কর্মীরা। অভিযোগ, তাঁদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হয়, মারধরও করা হয়। সন্ধ্যায় ওই কর্মীদের এক জন তৃণমূল নেতা পার্থ হাজরার বিরুদ্ধে আউশগ্রাম থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ ওই অভিযোগের ভিত্তিতে সরকারি কর্মীকে কাজে বাধা দেওয়া ও কর্মরত অবস্থায় হামলার মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে। ধৃতের খোঁজে তল্লাশিও চলছে, দাবি পুলিশের।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পার্থবাবু গুসকরা শহর তৃণমূলের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি। গত ছ’মাসে তাঁর প্রায় ১১ হাজার টাকার বিল বাকি পড়ে রয়েছে বলে বিদ্যুৎ দফতরের দাবি। অভিযোগ, বেশ কয়েকবার তাগাদাও করার পরেও টাকা না পাওয়ায় নিয়ম মাফিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার নির্দেশ দেন অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার। সেই মতো ঠিকাদারের কর্মীদেরও নির্দেশ দেওয়া হয়। অভিযোগ, বুধবার দুপুরে বিদ্যুৎ দফতরের ঠিকাকর্মীরা সংযোগ কাটতে এলে বাধা পান।
কর্মীদের দাবি, তাঁরা পার্থবাবুকে জানান বিদ্যুৎ দফতরের নির্দেশেই তাঁরা সংযোগ কাটতে এসেছেন। পার্থবাবু দাবি করেন, ব্যাঙ্কের সমস্যায় ফেঁসে যাওয়ায় সময়ে বিল জমা দিতে পারেননি তিনি। ১৫ দিন সময় চেয়ে বিদ্যুৎ দফতরের কাছে আবেদনও জানান। তাঁর দাবি, কর্তারা মৌখিক ভাবে সময় দেওয়ার আশ্বাস দেওয়ার পরেও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে কেন। কর্মীরা এর পরে তাঁকে নির্দেশিকা দেখান। অভিযোগ, নির্দেশিকার দেখার পরেই ওই কর্মীদের ধাক্কাধাক্কি, মারধর করে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। তাঁরা ফিরে দিয়ে অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারকে
বিক্ষোভ দেখান।

এই ঘটনা নিয়ে তৃণমূলের অন্দরে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। গুসকরা শহরের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা তৃণমূলের প্রাক্তন শহর সভাপতি নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায় মনে করেন, “পুরভোটের আগে এই ধরনের ঘটনা দলের ভাবমূর্তি খারাপ করছে। এ নিয়ে চিন্তাভাবনা করা উচিত।’’ আবার গুসকরা শহরের তৃণমূলের সভাপতি কুশল মুখোপাধ্যায় বলেন, “রাজনৈতিক ভাবে কালিমালিপ্ত করতেই অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনার পরেই বিদ্যুতের বিল মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।’’ অভিযুক্ত নেতার দাবি, “কোনও ঘটনাই ঘটেনি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন