• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

গলা টিপে মহিলাকে ‘খুন’

Death
নিহত: আইভি হাজরা। নিজস্ব চিত্র

বাড়িতে ঢুকে এক মহিলাকে গলা টিপে খুন করে দেহে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগে বিক্রম রায় নামে এক কম্পিউটার প্রশিক্ষককে ধরল অণ্ডাল থানা। মঙ্গলবার কাজোড়া গ্রামের ঘটনা। নিহতের নাম, আইভি হাজরা (৩৭)। ধৃত উখড়ার বাজপেয়ী মোড়ের বাসিন্দা।

এসিপি (পূর্ব) স্বপন দত্ত বলেন, ‘‘খুনের মামলা হয়েছে। বিক্রম রায়কে গ্রেফতার করা হয়েছে। সব দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’ তবে বিক্রমের প্রথম পক্ষের স্ত্রী সংবাদমাধ্যমের কাছে দাবি করেন, ‘‘স্বামীকে ফাঁসানো হয়েছে।’’

এলাকাবাসীর একাংশ জানান, মঙ্গলবার বিকেল ৪টে নাগাদ আইভিদেবীর দিদিমা মায়াদেবীর চিৎকারে তাঁরা ওই বাড়িতে গিয়ে দেখেন, চার দিকে ধোঁয়া। দেহ পোড়ার গন্ধ আসছে। মায়াদেবী পুলিশকে জানিয়েছেন, দুপুরে বিক্রম তাঁদের বাড়িতে এসে আইভিদেবীর গলা টিপে ধরে। অভিযোগ, সত্তোরর্ধ্ব মায়াদেবী বাধা দিতে গেলে তাঁকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় বিক্রম। মায়াদেবী সংবাদমাধ্যমের কাছে বলেন, “আমি অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলাম। জ্ঞান ফিরলে দেখি, বাড়ি ধোঁয়ায় ভরে গিয়েছে। তার পরেই চিৎকার করি।’’ স্থানীয়  সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়না-তদন্তের জন্য দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠায়।

কেন এই ঘটনা? মৃতের ভাই রাহুল হাজরা পুলিশ ও সংবাদমাধ্যমের কাছে দাবি করেন, প্রায় ১৫ বছর আগে তাঁর দিদি খান্দরার একটি প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিতেন। সেখানেই কম্পিউটার প্রশিক্ষক বিক্রমের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তবে বিক্রমের অন্যত্র বিয়ে হয়। কিন্তু রাহুলবাবুর দাবি, ‘‘দিদি বাড়িতে জানিয়েছিল, মাস আটেক আগে এক মন্দিরে ওর এবং বিক্রমের বিয়ে হয়েছে। দিদি শ্বশুরবাড়ি যাবে বলছিল। এর সঙ্গে ঘটনার যোগ আছে কি না, জানি না। দোষীর শাস্তি চাই।’’ আইভিদেবীর বাবা তপন হাজরা বলেন, ‘‘মেয়ে ‘বিয়ে করেছি’ জানানোর পরে, রেজিস্ট্রি করতে বলি। কিন্তু, মেয়ে ও বিক্রম, দু’জনেই বলে, ‘মনের মিল থাকলেই হল’। এখন দোষীর শাস্তি চাই।’’

তদন্তকারীরা জানান, মঙ্গলবার মাঝরাতে বিক্রমকে তার বাড়ি থেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়। রাহুলবাবুর অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্তকারীদের দাবি, জেরায় বছর ৪৫-এর বিক্রম তাঁদের জানিয়েছে, আইভিদেবী তাকে উখড়ায় তার বাড়ি নিয়ে যাওয়ার জন্য জেদ করছিলেন। এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার বিক্রম উখড়ার একটি পাম্প থেকে পেট্রল কিনে আইভিদেবীদের বাড়িতে যায়। তার পরে তাঁকে প্রথমে গলা টিপে খুন করে। মৃত্যু নিশ্চিত করতে আইভিদেবীর দেহে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। ধৃতকে আজ বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর আদালতে পাঠানো হবে। মায়াদেবী মাথায় চোট পেয়েছেন। তিনি দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন