• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিজেপি নেতার বাড়িতে বিক্ষোভ ‘দলের’ কর্মীদের

Protest
চলছে বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র

এগারো দিনের ব্যবধান। ফের দলের জেলা সভাপতি (কাটোয়া)  কৃষ্ণ ঘোষের বাড়ির সামনে  বিজেপির পতাকা-ফেস্টুন নিয়ে বিক্ষোভ দেখালেন শ’খানেক লোক। যদিও ওই নেতা তখন বাড়িতে ছিলেন না। তাঁর দাবি, তৃণমূলের মদতেই এ সব হচ্ছে। তৃণমূল অবশ্য সে দাবি মানেনি। তাদের দাবি, সবটাই বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার দুপুর ১টা নাগাদ কাটোয়া ২ ব্লকের গাজিপুর, করজগ্রাম, মণ্ডলহাট, ইঁদারাপাড়া ও পানুহাট এলাকার শ’খানেক হাতে বিজেপির পতাকা-ফেস্টুন নিয়ে রীতিমতো মিছিল করে কারবালাতলায় কৃষ্ণ ঘোষের বাড়ির সামনে জড়ো হন। তাঁদের অভিযোগ, দলের তরফে পাঠানো ত্রাণ ও দলের নানা কর্মসূচির টাকা নয়ছয় করা হচ্ছে। সভাপতির পদ থেকে কৃষ্ণবাবুকে অপসারণেরও দাবি জানান কয়েকজন। সভাপতির সঙ্গে দেখাও করতে চান তাঁরা। তবে ঘণ্টা দুয়েক বিক্ষোভ চলাকালীন সভাপতির পরিবারের কেউ বেরোননি। 

নিজেকে বিজেপি কর্মী বলে দাবি করে গাজিপুর গ্রামের দেবজ্যোতি মণ্ডলের অভিযোগ, “করোনা ও আমপানে ক্ষতিগ্রস্ত দলের গরিব কর্মীদের জন্য রাজ্য দফতর থেকে প্রচুর পরিমাণ ত্রাণ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু জেলা সভাপতি ঠিক ভাবে তা বিতরণ করেননি। গত লোকসভা ভোটের সময়েও দলের নানা কর্মসূচিতে পাঠানো লক্ষ লক্ষ টাকা তছরুপ করা হয়েছে।’’ তাঁর আরও দাবি, মণ্ডল কমিটিতে পুরনো বিজেপি কর্মীদের বসিয়ে তৃণমূল থেকে আসা লোকজনকে জায়গা করে দেওয়া হচ্ছে। সে কারণে সভাপতির অপসারণও দাবি করেছেন তাঁরা। করজগ্রাম থেকে আসা উৎপল সাঁতরাও নিজেকে বিজেপি কর্মী বলে পরিচয় দেন। তাঁরও দাবি, “তৃণমূলের কথায় সভাপতি আমাদের নানা ভাবে হেয় করেন, মিথ্যা অপবাদ দিয়ে দল থেকে বার করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করেন। রাজ্য নেতৃত্বকে অভিযোগ জানিয়েছি।’’

জেলা বিজেপি সভাপতি (কাটোয়া) কৃষ্ণ ঘোষ বলেন, “আমি গৃহসম্পর্কযাত্রা কর্মসূচিতে রয়েছি। কিছু লোক আমার বাড়ির সামনে গিয়েছেন বলে শুনেছি। দলের তরফে পাঠানো ত্রাণ মণ্ডল সভাপতিদের মাধ্যমে স্বচ্ছ ভাবেই বিলি করা হয়েছে। আমি প্রতিটি কর্মীকে সম্মান করি, এর পরেও দলের কারও ক্ষোভ থাকলে তা জানানোর পদ্ধতি রয়েছে। তৃণমূল-সংস্কৃতিতে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখানো ঠিক নয়।’’  যদিও কাটোয়ার তৃণমূল বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের কটাক্ষ, “দলের জেলা সভাপতির বাড়ির সামনে গিয়ে বিজেপি কর্মীরা বারবার দুর্নীতির অভিযোগ করছেন। আর তা ঢাকতে আমাদের নামে ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলা হচ্ছে। প্রকৃত সত্য কি, মানুষ তা জানেন।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন