রাত বাড়লে পুলিশি নজরদারি কমে যাওয়ায় ট্রাকচালকেরা যে কতটা বেপরোয়া হয়ে ওঠেন, ফের তার প্রমাণ মিলল মঙ্গলবার রাতে। তীব্র গতিতে ছুটে আসা ট্রাকের ধাক্কায় মোটরবাইক থেকে ছিটকে পড়ে সেই ট্রাকের চাকাতেই পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল উনিশ বছরের এক তরুণের। গুরুতর আহত আর এক যুবক। পুলিশ জানায়, দুর্ঘটনার জেরে মৃতের ডান হাতটি তাঁর দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে রাস্তায় পড়ে যায়। পরে পুলিশ সেটি উদ্ধার করে। পলাতক ট্রাকচালককে খুঁজছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার কোনা এক্সপ্রেসওয়ের হ্যাংস্যাং মোড়ে। পুলিশ জানায়, ওই রাতে হাওড়ার কামারডাঙার একটি সংস্থায় বিশ্বকর্মা পুজোর আয়োজন চলছিল। রাতের খাবার কম পড়ায় কোনা এক্সপ্রেসওয়ে ও ক্যারি রোডের মোড়ের দোকান থেকে বিরিয়ানি কিনতে বাইক নিয়ে বেরোন কারখানার দুই কর্মী। বাইক চালাচ্ছিলেন হাওড়ার ইছাপুর উত্তর পশ্চিম পাড়ার বাসিন্দা দেবায়ন দে (২৩)। পিছনে বসেছিলেন হুগলির জাঙ্গিপাড়ার বাসিন্দা শুভ জানা (১৯)। দু’জনের মাথাতেই হেলমেট ছিল।

পুলিশ সূত্রের খবর, চ্যাটার্জিহাট থানার বেলেপোলের হ্যাংস্যাং মোড় থেকে ক্যারি রোডের দিকে যাওয়ার সময়ে আনাজ বোঝাই একটি লরি রাস্তার বাঁ দিক ঘেঁষে দাঁড়িয়ে যায়। পিছনে বাইক নিয়ে দাঁড়িয়ে পড়েন ওই দুই যুবকও। কিছু ক্ষণ দাঁড়ানোর পরেও সামনের লরিটি এগোচ্ছে না দেখে সেটিকে পাশ কাটিয়ে রাস্তার ডান দিকে যাওয়ার সময়েই পিছন দিক থেকে তীব্র গতিতে আসা একটি ট্রাক ধাক্কা মারে ওই বাইকে। রাস্তার সিসি ক্যামেরায় দেখা গিয়েছে, বাইক থেকে বাঁ দিকে ছিটকে পড়েন দেবায়ন। ডান দিকে পড়েন শুভ। লরিটি শুভকে পিষে দিয়ে পালায়। পুলিশ তাঁদের উদ্ধার করে হাওড়া জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা শুভকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর জখম দেবায়ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, তিন মাস আগে কামারডাঙার ওই কারখানায় কাজে যোগ দিয়েছিলেন শুভ। বিশ্বকর্মা পুজোর আগের রাতে কারখানার খাবার কম পড়াই ডেকে আনল সর্বনাশ।