২৫ কিলোগ্রাম গাঁজা-সহ বৃহস্পতিবার রাতে এক দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেিছল পুলিশ। আর শুক্রবার সেই অভিযুক্তকে আদালতে তুলতে গিয়ে নাস্তানাবুদ হতে হল পুলিশকে। হাওড়ার বাগনানের ঘটনা। 

পুলিশ জানিয়েছে, শেখ আজাদ ওরফে অন্তু নামে ওই অভিযুক্ত খাদিনান গ্রামের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার রাতে বাইক চেপে বাড়ি ফেরার সময় গাঁজা-সহ তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, বাগনান-আমতা রোডে গ্রেফতারের সময় পালানোর চেষ্টা করেছিল আজাদ। কিন্তু সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়। শুক্রবার সকালে তাকে বাগনান থানা থেকে প্রিজন ভ্যানে চাপিয়ে হাওড়া আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় ঘটে অন্য বিপত্তি।

অভিযোগ, ভ্যানের মধ্যেই পুলিশ-কর্মীদের মারতে শুরু করে আজাদ।  চার বার হ্যান্ডকাফ খুলে ফেলে সে। কামড়ে দেয় তিন পুলিশকর্মীর হাতে। এমনকি পুলিশকর্মীদের দিকে থুথুও ছেটাতে থাকে সে। অভিযোগ, যে সাব-ইন্সপেক্টরের হাতে মামলার নথি ছিল সেটি কেড়ে নিয়ে কিছু কাগজ ছিঁড়ে দেয় সে। পুলিশ কোনওমতে তাকে আদালতে হাজির করায়। তবে কিছু কাগজপত্রের অভাবে সে দিন মামলাটির শুনানি হয়নি। তাকে ফের ফিরিয়ে আনা হয় বাগনান থানায়।

পুলিশ জানিয়েছে, থানার লকআপে সে পু‌লিশকে সারা রাত ধরে হুমকি দিতে থাকে। পুলিশকে গালিগালাজ করে। শনিবার তাকে আবার হাওড়া আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। এ দিন আর পুলিশ কোনও ঝুঁকি নেয়নি। তিনটি গাড়ি যায় তার সঙ্গে। মাঝখানের গাড়িতে রাখা হয় ধৃতকে। সামনে ও পিছনে পাহারা দিতে থাকে দুটি পুলিশের গাড়ি। সেই দুটি গাড়িতে ছিল র‌্যাফ। পুলিশ প্রহরা থাকায় এদিন আর ঝামেলা করতে পারেনি আজাদ। 

বিচারক এ দিন তাকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশ মোতাবেক তাকে পাঠানো হয়েছে মল্লিকফটকে হাওড়া জেলা সংশোধনাগারে। কাল সোমবার ফের তাকে আদালতে হাজির করানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, আজাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, ডাকাতি, তোলাবাজি সহ বিভিন্ন অভিযোগ আছে। সেইসব মামলায় সে ধরাও পড়েছে। জামিন পেয়ে এ বার গাঁজা পাচারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে।