বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের প্রতিবাদ করায় দুই যুবককে হাঁসুয়া দিয়ে কুপিয়ে থানায় আত্মসমর্পণ করল এক যুবক। বৃহস্পতিবার রাতে চুঁচুড়ার আনন্দমঠ এলাকায় জখম অতনু সরকার এবং সুরজিৎ মাল নামে আক্রান্ত দু’জনকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তাঁদের পরিবারের পক্ষ থেকে খুনের চেষ্টার অভিযোগ পেয়ে পুলিশ আত্মসমর্পণকারী অজয় মণ্ডল নামে ওই যুবককে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, তদন্ত করে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত অজয় আনন্দমঠ এলাকার বাসিন্দা। আক্রান্তদের মধ্যে অতনু পাশের সিংহীবাগানের বাসিন্দা। সুরজিতের বাড়ি দক্ষিণায়ন ৩ নম্বর লেনে। ওই পাড়ারই এক বিবাহিত মহিলার সঙ্গে অজয়ের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। এ নিয়ে মহিলার পরিবারে অশান্তি হচ্ছিল। এলাকাবাসীও ওই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি। নিষেধ সত্ত্বেও অজয় ওই মহিলার সঙ্গে মেলামেশা বন্ধ করেননি বলে এলাকাবাসীর দাবি।    

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অজয়ের সঙ্গে মহিলাকে এলাকায় ঘোরাঘুরি করতে দেখেন স্থানীয়েরা। তাঁরা মহিলার বাড়িতে সে কথা জানান। তা নিয়ে অশান্তি হয়। অজয় স্থানীয় বাসিন্দাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। বদলা নিতে রাত ১১টা নাগাদ অতনুকে ডেকে আনন্দমঠে নিজের বাড়ির কাছে নিয়ে গিয়ে হাঁসুয়া দিয়ে সে কোপাতে শুরু করে বলে অভিযোগ। অতনুর চিৎকারে সুরজিৎ ঘটনাস্থলে আসেন। অজয়কে তিনি বাধা দেন। এতে অজয় তাঁকেও হাঁসুয়া দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপায় বলে অভিযোগ। দু’জনেই রক্তাক্ত অবস্থায় ঘটনাস্থলে পড়ে যান। স্থানীয় বাসিন্দাদের বেরিয়ে আসতে দেখে অজয় পালায়। শুক্রবার সকালে সে চুঁচুড়া থানায় গিয়ে 

আত্মসমর্পণ করে।

আক্রান্তদের প্রথমে চুঁচুড়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় অতনুকে পরে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে স্থানান্তরিত করানো হয়।