• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এক ফোনেই সব সাহায্য প্রবীণদের

Phobe
ছবি: সংগৃহীত।

শুধুমাত্র একটা ফোন বা মোবাইলে বার্তা। করোনা-আবহে উত্তরপাড়ার নিঃসঙ্গ, একাকী বৃদ্ধবৃদ্ধা বা প্রবীণদের যে কোনও রকম সাহায্যের জন্য এগিয়ে এল পুরসভা। চালু করা হল অ্যাপ এবং বিশেষ টাস্ক ফোর্স। 

‘পাশে আছি’ নামে ওই বিশেষ অ্যাপে বৃদ্ধবৃদ্ধারা যোগাযোগ করলেই মোটরবাইক নিয়ে হাজির হয়ে যাবেন টাস্ক ফোর্সের সদস্যেরা। সমস্যার সমাধান করে দেবে তাঁরাই। সে ওষুধ এনে দেওয়াই হোক বা বাজার, ব্যাঙ্কের কাজ হোক বা অ্যাম্বুল্যান্স ডাকা— সব কিছুই সামলাবেন তাঁরা। ২৪ ঘণ্টাই এই পরিষেবা নিখরচায় মিলবে জানিয়ে পুরপ্রধান দিলীপ যাদব বলেন, ‘‘তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে রাস্তায় নেমে মানুষকে সচেতন করতে গিয়ে দেখেছি, বহু প্রবীণ একা থাকেন। কাজের সূত্রে ছেলে-বৌমা বা মেয়ে-জামাই বাইরে রয়েছেন। বারবার সংবাদমাধ্যমে দেখানো হচ্ছে, প্রবীণদের পক্ষে এই পরিস্থিতি প্রতিকূল। তাঁরা ভয়ে বা দুশ্চিন্তায় কুঁকড়ে রয়েছেন। তাই তাঁদের পাশে দাঁড়াচ্ছে পুরসভা।’’

বিমান চলাচল বন্ধ। রাজ্যে লকডাউন। বিদেশে বা ভিন্ রাজ্যে কাজে গিয়ে করোনা-পরিস্থিতিতে অনেকে আটকে পড়েছেন। অথচ, উত্তরপাড়ায় গয়তো রয়ে গিয়েছেন তাঁদের বৃদ্ধ মা-বাবা, শ্বশুর-শাশুড়ি বা প্রবীণ আত্মীয়েরা। এই পরিস্থিতিতে দু’পক্ষেরই মানসিক টানাপোড়েন বাড়ছে। তা কমাতে পুরসভার এই উদ্যোগ কাজে আসবে বলে মনে করছেন অনেকেই।

পুরসভা সূত্রের খবর, সোমবার থেকেই চালু হয়ে গিয়েছে ‘পাশে আছি’ অ্যাপ। কমবয়সী পুরকর্মীদের নিয়ে তৈরি হয়েছে টাস্ক ফোর্স। তৈরি রাখা হয়েছে অ্যাম্বুল্যান্স। যাতে প্রয়োজনে বয়স্ক নাগরিকদের দ্রুত হাসপাতাল বা নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া যায়। টাস্ক ফোর্সের সদস্যদের সুরক্ষার জন্য সব রকম ব্যবস্থাও করা হয়েছে। তাঁদের মাথায় থাকছেন একজন পুর অফিসার। যিনি পুরো টিমের নেতৃত্ব দেবেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন