• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নিজেকে অফিসার বলে প্রতারণা, টাকা লোপাট

আচমকাই মোবাইলে মেসেজ। তা দেখে চক্ষু চড়কগাছ বালির গৃহবধূ তাপসী চক্রবর্তীর। দেখলেন, তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে তোলা হয়েছে ৪০ হাজার টাকা!

কী ভাবে এমন ঘটল, ভেবে না পেয়ে ব্যাঙ্কে গিয়ে জানান তিনি। সেখানে সিসিটিভি ফুটেজে দেখেন, কিছু আগে ক্রেতা সুরক্ষা আদালতের অফিসার পরিচয়ে যে ব্যক্তি তাঁর বাড়ি এসেছিলেন, তিনিই চেক ভাঙিয়ে টাকা তুলে চম্পট দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে বালিতে।

তাপসীদেবী পুলিশকে জানান, এ দিন মাধব ব্যানার্জি লেনে তাঁর ফ্ল্যাটে আসেন ওই ব্যক্তি। শ্রীরামপুর ক্রেতা সুরক্ষা আদালতের প্রতিনিধি পরিচয়ে জানতে চান গ্যাসের ভর্তুকির টাকা ব্যাঙ্কে জমা পড়ছে কি না। টাকা ঠিক মতো আসছে না জেনে ঘরে বসতে চান তিনি। রাজি হন ওই গৃহবধূ। তাপসীদেবীর অভিযোগ, গ্যাস, ব্যাঙ্কের কাগজ ও চেক বই দেখতে চান ওই ব্যক্তি। তাড়াতাড়ি ভর্তুকির টাকা পেতে কিছু ফর্মে সইও করান। ওই ব্যক্তি চলে যাওয়ার আধ ঘণ্টার মধ্যেই টাকা তুলে নেওয়ার মেসেজ আসে। ব্যাঙ্কে গিয়ে তাপসীদেবী জানতে পারেন, তাঁর সই করা চেক ভাঙিয়েই টাকা তোলা হয়েছে। ফুটেজ দেখে ওই ব্যক্তিকে শনাক্ত করেন তিনি।

পুলিশ জানায়, ঘটনার পরে তাপসীদেবী দেখেন তাঁর চেক বইয়ের তিনটি পাতা নেই। পুলিশের অনুমান, কথার ফাঁকে ওই ব্যক্তি চেক ছিঁড়ে তাপসীদেবীকে দিয়ে সই করিয়ে নেয়। পরে ফাঁকা চেকে ‘সেল্ফ’ লিখে টাকা তুলে নেয়। তাপসীদেবী বলেন, ‘‘ওই ব্যক্তি যে ভাবে ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের অফিসার পরিচয়ে কথা বলছিলেন, কিছু বুঝতেই পারিনি।’’ তাঁর অভিযোগ পেয়ে ব্যাঙ্কের সিসিটিভি-র ফুটেজ সংগ্রহ করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন