বিজেপির প্রচারে যাওয়ায় মার, নালিশ
পুলিশ জানিয়েছে, বছর একত্রিশের হেমন্ত দাস নামে ওই কর্মীকে গুরুতর জখম অবস্থায়  পুরশুড়া ব্লক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
BJP

নির্বাচনী প্রচারে বিজেপির মোটরবাইক র‌্যালিতে যোগ দেওয়ায় দলীয় এক কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। শনিবার রাতে পুরশুড়ার শ্রীরামপুর পঞ্চায়েত এলাকার ধাপাধাড়ার ঘটনা।

পুলিশ জানিয়েছে, বছর একত্রিশের হেমন্ত দাস নামে ওই কর্মীকে গুরুতর জখম অবস্থায়  পুরশুড়া ব্লক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। রবিবার সকালে বিজেপির পক্ষে  তৃণমূলের শ্রীরামপুর অঞ্চল যুব সভাপতি রমেন রাউত এবং কার্যকরী সভাপতি বাদশা হিসাবুদ্দিন মিদ্দার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তদন্ত শুরু হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার পুরশুড়া বিধানসভা এলাকায় বিজেপি প্রার্থী তপন রায়ের প্রচারে মোটরবাইক র‌্যালি হয়।  প্রহৃত হেমন্ত দাসের অভিযোগ, “তৃণমূল যুব নেতাদের ফতোয়া ছিল অঞ্চল থেকে বিজেপির প্রচারে যাওয়া চলবে না। সেই ফতোয়া না মেনে দলের প্রচারে সামিল হওয়ায় রাত দেড়টা নাগাদ বাড়ির তালা ভেঙে ঘরে ঢোকে ওরা। আমাকে খুনের চেষ্টাও করা হয়। পড়শিরা আমাকে বাঁচায়।’’

অভিযুক্ত দুই যুব তৃণমূল নেতার অবশ্য দাবি, ‘‘আমরা ঘটনাস্থলে ছিলাম না। শুনেছি প্রচারের জন্য পাওয়া টাকা ভাগ নিয়ে বিজেপি  কর্মীরাই মারামারি করেছে।’’

আরামবাগ জেলা বিজেপি সভাপতি বিমান ঘোষ বলেন, “ভোটে নিশ্চিত হার জেনে দিশেহারা তৃণমূল। সমস্ত বিষয়টা নির্বাচন কমিশনে জানানো হয়েছে।” পুরশুড়ার প্রাক্তন বিধায়ক তৃণমূলের পারভেজ রহমান বলেন, “পুরশুড়ায় এই মূহূর্তে বিজেপি বা অন্য বিরোধী দলের ভিত নেই। খামোখা আমাদের ছেলেরা ওদের মারতে যাবে কেন!”

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত