• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভবনের চাপে ফাটল পাইপ, জলসঙ্কটে উত্তর হাওড়া

Disaster
দুর্ভোগ: পাইপ ফেটে জলের নীচে হাওড়ার নস্করপাড়া রোড। রবিবার। ছবি: দীপঙ্কর মজুমদার

হাওড়া ইম্প্রুভমেন্ট ট্রাস্টের (এইচআইটি) কমিউনিটি ভবনের নীচ দিয়ে গিয়েছে পদ্মপুকুর জল প্রকল্পের ৭৫০ মিলিমিটার ব্যাসার্ধের পাইপ! শনিবার সেই পাইপ ফেটে যাওয়ায় তীব্র জলসঙ্কটে পড়েছে উত্তর হাওড়া। জলের তোড়ে একটি বস্তি প্লাবিত হয়ে যায়। পানীয় জল সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায় উত্তর হাওড়ায়। শনিবার রাত থেকেই যুদ্ধকালীন তৎপরতায় হাওড়া পুরসভা কাজ শুরু করে। কিন্তু পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে, তার নিশ্চয়তা রবিবারেও দিতে পারেননি পুরকর্তারা। 

এ দিকে, জল সরবরাহকারী মূল পাইপের উপরে কী ভাবে একটি বাড়ি তৈরি হল তা নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন এইচআইটি-র চেয়ারম্যান সুলতান সিংহ। পুরসভা সূত্রের খবর, পদ্মপুকুর প্রকল্পের জল সরবরাহের জন্য উত্তর হাওড়ার তিন নম্বর ওয়ার্ডের সালকিয়ার নস্করপাড়ায় কয়েক দশক আগে একটি ভূগর্ভস্থ জলাধার তৈরি করা হয়। সেখান থেকে উত্তর হাওড়ার বিস্তীর্ণ অংশের অলিগলিতে জল সরবরাহ করতে ৭৫০ এবং ৯০০ মিলিমিটারের দু’টি পাইপলাইন বেরিয়েছে। এর মধ্যে ৭৫০ মিলিমিটারের পাইপটি সালকিয়ার ওই ভূগর্ভস্থ জলাধার থেকে বেরিয়ে সামনের এইচআইটি-র জমি দিয়ে নস্করপাড়ায় পড়েছে। পুরসভা সূত্রের খবর, বছর দশেক আগে এইচআইটি ওই জমির উপরে একতলা কমিউনিটি হল তৈরি করে। দু’বছর আগে তৃণমূল বোর্ড ওই ভবনটি দোতলা করে। 

এক পুরকর্তা জানান, দোতলা ভবনের ভার সহ্য করতে পারেনি মাটির নীচ দিয়ে যাওয়া ৭৫০ মিলিমিটারের পাইপটি। ফলে পাইপ ফেটে বিপর্যস্ত হয়েছে জল পরিষেবা। এলাকা ও সংলগ্ন বস্তিতে স্রোতের মতো ঢুকে পড়েছে জল। খবর পেয়ে পুরসভার পদস্থ কর্তা এবং ইঞ্জিনিয়ারেরা ঘটনাস্থলে যান। শনিবার রাত ১টা পর্যন্ত সেখানে ছিলেন পুর কমিশনার ধবল জৈন, তিন নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর বাপি মান্না। যদিও রবিবার পর্যন্ত পুরসভার ইঞ্জিনিয়ারেরা পাইপটি মেরামত করতে পারেননি। 

এক পুর আধিকারিক জানান, মাটির নীচের পাইপ মেরামত করতে হলে ভবনটি ভেঙে পড়তে পারে। তিনি বলেন, ‘‘পাইপের উপরে বাড়ি তৈরি হওয়াই দুর্ঘটনার কারণ। ওখানে বিশেষজ্ঞ দল পাঠানো হচ্ছে। অন্য দিক দিয়ে ঘুরিয়ে পাইপ বসানোর চেষ্টা চলছে।’’ তবে সমস্যা মিটবে কবে তা স্পষ্ট করতে পারছেন না পুর আধিকারিকেরা। পুরসভার জলের পাইপলাইনের উপরে বাড়ি হল কী ভাবে?হাওড়া ইম্প্রুভমেন্ট ট্রাস্টের (এইচআইটি) চেয়ারম্যান সুলতান সিংহ বলেন, ‘‘জল সরবরাহের মূল পাইপলাইনের উপর কী ভাবে বাড়ি তৈরির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল তা ইঞ্জিনিয়ারদের কাছে জানতে চাওয়া হবে। তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন