বিয়ের আসরে গিয়ে নাবালিকার বিয়ে রুখে দিল পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বাগনান থানার দেউলটিতে।

আলো ঝলমলে বিয়ের আসর। প্রস্তুতি চলছে শুভদৃষ্টির। এমন সময় আসরে পুলিশ এসে কনের বাবার কাছে মেয়ের বয়সের প্রমাণপত্র দেখতে চাইলেন। কনের বাবা তা দেখাতে না পারায় পুলিশ বর, কনে দু’জনকেই থানায় নিয়ে আসে। খবর দেওয়া হয় চাইল্ড লাইনে।

সোমবার পুলিশ খবর পায়, বাগনানের ঘোড়াঘাটার এক নবম শ্রেণির নাবালিকা ছাত্রীর সঙ্গে ওই গ্রামেরই এক  নাবালকের বিয়ে হচ্ছে। সোমবার রাত দশটা নাগাদ পুলিশ বিয়ে বাড়িতে গিয়ে  বিয়ে বন্ধ করে দেয়। মঙ্গলবার সকালে চাইল্ড লাইনের আধিকারিকরা আসেন। তাঁরা ওই নাবালিকা ও নাবালকের অভিভাবকদের বোঝান, কম বয়সে বিয়ে হলে কী ধরনের সমস্যা হতে পারে। এরপর আধিকারিকরা তাঁদের থেকে মুচলেকা নেন। 

নাবালিকার বাবা বলেন, ‘‘দুই বাড়ির মত নিয়ে বিয়ে ঠিক করেছিলাম। বিয়েতে পাত্রপক্ষ দশ হাজার টাকা, খাট বিছানা ও সোনার গয়নার দাবি করেছিল। কোনও রকমে জোগাড় করেছিলাম। কিন্তু আঠারো বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দিতে নেই, জানতাম না। আমরা মেয়েকে বুঝিয়ে আবার স্কুলে পাঠাবো। আঠারো বছর বয়সের পর বিয়ের কথা ভাবব।’’