• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পরিযায়ী-প্রকল্প নিয়ে তোপ তৃণমূলের

TMC
ফাইল চিত্র।

পেট্রলের দাম বৃদ্ধি এবং পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কেন্দ্রীয় প্রকল্পে রাজ্যের ঠাঁই না মেলা নিয়ে কেন্দ্রকে বিঁধল তৃণমূল। শনিবার উত্তরপাড়ায় এক সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন দলের জেলা সভাপতি দিলীপ যাদব এবং জাঙ্গিপাড়ার বিধায়ক তথা দলের জেলা আহ্বায়ক স্নেহাশিস চক্রবর্তী। তৃণমূলের অভিযোগ, বিশ্বে যখন তেলের দাম নিম্নমুখী, তখন দেশে টানা ১৯ ধরে তেলের দাম বেড়েই চলছে। বিজেপি-শাসিত রাজ্যগুলি  বাদে প্রতিটি রাজ্য এর বিরোধিতায় সরব। কিন্তু কোনও হেলদোল নেই কেন্দ্রের। ফলে, প্রতিটি পণ্যের দাম হু-হু করে বাড়ছে। রাজ্যের বেসরকারি বাস মালিকেরা ভাড়া বাড়ানোর জন্য আওয়াজ তুলছেন। জাঙ্গিপাড়ার বিধায়ক স্নেহাশিসবাবু বলেন, ‘‘এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও রাজ্য সরকার প্রতিটি বেসরকারি বাস মালিকদের জন্য মাসিক ১৫ হাজার টাকা ভর্তুকি ঘোষণা করেছে।’’

 দিলীপবাবুর অভিযোগ, ‘‘পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য ‘গরিব কল্যাণ রোজগার’ প্রকল্প ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। তাতে শর্ত ছিল, দেশের প্রতিটি রাজ্যের যে সব জেলা থেকে নূন্যতম ২৫ হাজার মানুষ অন্য রাজ্যে কাজে যান, সেই সব জেলাকেই ওই প্রকল্পের আওতায় আনতে হবে। আমাদের রাজ্যের ২১টি জেলা থেকেই হাজার-হাজার পরিযায়ী শ্রমিক অন্য রাজ্যে রুজির টানে যান। তাঁরা কী পেলেন কেন্দ্রের থেকে?’’ তাঁর আরও অভিযোগ, ‘‘আমাদের এই হুগলি জেলা থেকে ৯৩ হাজার মানুষ অন্য রাজ্যে কাজে যান। কিন্তু আমাদের রাজ্যের কোনও জেলাকেই ওই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়নি।" বিজেপি-শাসিত রাজ্যগুলিকেই ওই প্রকল্পের আওতায় আনা  হয়েছে।’’

তৃণমূলের উদ্দেশে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়েছে বিজেপি। দলের শ্রীরামপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি শ্যামল বসুর প্রশ্ন, ‘‘কেন্দ্রীয় প্রকল্পের কোনও টাকা সঠিক অর্থে এই রাজ্যে ব্যবহার হয়? গ্রামের মানুষ সেই টাকার নূন্যতম সুযোগ পান? কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকায় তো শাসকদলের নেতাদের পকেট ফুলছে। যাঁরা আমপানে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আসা সামান্য টাকার লোভও সামলাতে পারেন না, তাঁদের মুখে কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা মানায় না।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন