চাঁপদানি পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে জিতে গেল তৃণমূল। তৃণমূল প্রার্থী রেখা পাসোয়ান তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী অঞ্জনা চৌধুরীকে ৮০৭ ভোটে হারিয়ে দেন। এই ভোটে কংগ্রেস বা সিপিএম প্রার্থী দেয়নি।

আসনটি তফসিলিদের জন্য সংরক্ষিত। গত বারের পুর নির্বাচনে ওই ওয়ার্ডে জিতেছিলেন বিজেপি প্রার্থী রেখা সিংহ মাহাতো। কিন্তু তাঁর দাখিল করা শংসাপত্র কলকাতা হাইকোর্টে ভুয়ো প্রমাণিত হয়। হাইকোর্টে ওই ওয়ার্ডে নির্বাচনের নির্দেশ দেয়। সেইমতো গত ১৩ অগস্ট রাজ্যের সাতটি পুরসভার সঙ্গে ওই ওয়ার্ডেও ভোট হয়। বৃহস্পতিবার ভোটগণনা হয় চন্দননগর মহকুমাশাসকের দফতরে।

ফল বেরোনোর পরে দেখা যায়, তৃণমূল প্রার্থী পেয়েছেন ২০০১টি ভোট। বিজেপির ঝুলিতে গিয়েছে ১১৯৪টি। জয়ের পর চাঁপদানির পুরপ্রধানের নেতৃত্বে বিজয়-মিছিল বের করে তৃণমূল। গোলমাল এড়াতে ছিল পুলিশি টহলদারি। তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোট লুঠ এবং গণনাকেন্দ্রের বাইরে বহিরাগতদের জড়ো করার অভিযোগে বিজেপি এ দিন ভোট গণনা বয়কট করে।  

বিজেপির রাজ্য সহ-সভাপতি রাজকুমারী কেশরীর অভিযোগ, ‘‘আমরা ভোট লুঠ এবং বহিরাগত দুষ্কৃতী জড়ো করার রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না। তাই প্রতিবাদে আমাদের সমর্থকেরা গণনাকেন্দ্র ছেড়ে চলে যান।’’

অভিযোগ অস্বীকার করে হুগলি জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের কৃষি বিপণন মন্ত্রী তপন দাশগুপ্তের দাবি, ‘‘বিজেপির পায়ের তলার মাটি ক্রমশই সরছে। তাই কোনও কিছু না-পেয়ে আমাদের দলের বিরুদ্ধে কুৎসা করছে।’’