আমানতকারীদের আর্থিক প্রতারণার অভিযোগে ধৃত লগ্নি সংস্থা ‘পিনকন’-এর কর্তা মনোরঞ্জন রায়-সহ বাকি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা চলছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা আদালতে। সেই মামলাতেই রাজসাক্ষী হিসেবে মঙ্গলবার সাক্ষ্য দিলেন সংস্থার এক ডিরেক্টর সিদ্ধার্থ রায়। অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা বিচারক (তৃতীয়) মৌ চট্টোপাধ্যায়ের এজলাসে সাক্ষ্য দিয়েছেন তিনি।

ওই বেসরকারি অর্থলগ্নি সংস্থার আমানতকারীদের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার হয়েছেন সংস্থার অন্যতম কর্তা মনোরঞ্জন রায়, অন্যান্য পদাধিকারী-সহ মোট ১৮ জন। এঁদের মধ্যেই রয়েছেন সংস্থার এক ডিরেক্টর সিদ্ধার্থ রায়। পিনকন মামলায় সরকার পক্ষের বিশেষ আইনজীবী সৌমেনকুমার দত্ত বলেন, ‘‘সংস্থার ডিরেক্টর সিদ্ধার্থ রায় মামলায় রাজসাক্ষী হতে আদালতের কাছে অনুমতি চেয়েছিলেন। আদালত  অনুমতি দেওয়ার পরে গত ১১ ডিসেম্বর প্রথম পর্যায়ের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে। মঙ্গলবার সিদ্ধার্থবাবুর দ্বিতীয় পর্যায়ের সাক্ষ্যগ্রহণ হল।’’

জেলা আদালতের নির্দেশে এখন জেল হেফাজতে রয়েছেন মনোরঞ্জন-সহ অন্য অভিযুক্তরা। এ দিন কড়া পুলিশি পাহারায় তাঁদের তমলুকের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা বিচারকের (তৃতীয়) এজলাসে হাজির করানো হয়। তাঁদের উপস্থিতিতেই বিচারকের কাছে সাক্ষ্য দেন সিদ্ধার্থবাবু।

আমানতকারীদের অভিযোগের ভিত্তিতে আর্থিক প্রতারণা অভিযোগের মামলায় ২০১৭ সালে মনোরঞ্জন রায়কে প্রথমে গ্রেফতার করেছিল রাজস্থান পুলিশ। পরে পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি থানায় আমানতকারীদের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতারণার মামলায়  পিনকন কর্তাকে হেফাজতে নেয় মামলার তদন্তকারী সংস্থা ‘ডিরেক্টর অফ ইকোনমিক অফেন্স’ (ডিইও)। মনোরঞ্জন-সহ পিনকনের অন্য পদাধিকারীদের গ্রেফতার করে তদন্তকারী সংস্থা।