অচৈতন্য অবস্থায় এক বৃদ্ধকে দিঘা-তমলুক রেলপথে রামনগর স্টে‌শন থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছিল পুলিশ। কিন্তু সুস্থ হয়ে ওঠার পরেও বছর পঁয়ষট্টির ওই ব্যক্তি নিজের বাড়ির ঠিকানা বলতে পারছেন না। ফলে দিঘা স্টেট জেনারেল হাসপাতালই এখন তাঁর ঠাঁই। হাসপাতাল সূত্রে খবর, এমনতিতেই হাসপাতালে রোগীর চাপ রয়েছে। তার উপর ওই বৃদ্ধ সুস্থ হয়ে গেলেও বাড়ির ঠিকানা বলতে না পারায় তাঁকে হাসপাতালেই একটি শয্যায় রেখে দিতে হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রতিদিন খাবার ব্যবস্থাও করতে হচ্ছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, রামনগর থানার পুলিশ অচৈতন্য অবস্থায় ওই বৃদ্ধকে এনে হাসপাতালে ভর্তি করে। আপাতত তিনি কিছুটা সুস্থ। কিন্তু তাঁর বাড়ি কোথায় তা বলতে না পারায় তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া যাচ্ছে না। বৃদ্ধ নিজের নাম বলছেন সঞ্জয় দেশমুখ। বাড়ি মুম্বইতে। কিন্তু মুম্বইয়ে কোথায় তাঁর বাড়ি বলতে পারছেন না। রামনগর থানার এক পুলিশ কর্তা বলেন, ‘‘২৬ অগস্ট রামনগর রেল স্টেশনের ধারে ওই বৃদ্ধ সংজ্ঞাহীন অবস্থায় পড়েছিলেন। সঙ্গে কেউ ছিল না। কী ভাবে তিনি সেখানে এলেন জানা যায়নি। হাসপাতালের সুপার বিষ্ণুপদ বাগ জানিয়েছেন, ওই বৃদ্ধের বাড়ির ঠিকানা জানার জন্য আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

কাঁথির এসডিপিও অভিষেক চক্রবর্তী বলেন, ‘‘অসুস্থ ওই বৃদ্ধকে পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি করেছিল। কিন্তু উনি সুস্থ হওয়ার পরে নিজের ঠিকানা সঠিক বলতে পারছেন না। আমরা চিকিৎসকদের কাছে সময় চেয়েছি। পাশাপাশি মহারাষ্ট্র পুলিশের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হচ্ছে।’’